মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আমিরের বলে ওভাল নাকি কোহলির ব্যাটে মেলবোর্ন ফিরবে আজ

আপডেট : ০৯ জুন ২০২৪, ০৫:২১ পিএম

ইনসুইং দিয়ে রোহিত শর্মাকে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে উইকেট। দুই ওভার পর চিরচেনা কাটার দিয়ে বিরাট কোহলির উইকেট আদায়। তারপরই শূন্যে লাফ। আর শেষটা করেছিলেন শিখর ধাওয়ানকে বিদায় করে। এই তিন উইকেট দিয়ে ওভালে ২০১৭ সালের ১৮ জুন তারিখটা স্মরণীয় করে রাখেন মোহাম্মদ আমির। তার এই বড় তিন শিকারই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জেতায় পাকিস্তানকে। সেটাও আবার ভারতের মতো দলকে হারিয়ে। বৈশ্বিক কোনো প্রতিযোগিতায় সেটাই মহেন্দ্র সিং ধোনিদের বিপক্ষে প্রথম জয় ছিল সরফরাজ আহমেদদের। যে জয়ের পরে আমিরের নামে মিথ হয়ে গিয়েছিল, তিনি ফিরলেই শিরোপা জেতে পাকিস্তান। আজ আবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত-পাকিস্তান। যে ম্যাচের আগে আলোচনায় সেই আমির। যিনি অবসর ভেঙে চার বছর পর ফিরেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। তবে কী সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে? নাকি বিরাট কোহলির ব্যাটে মেলবোর্ন ফিরবে আরেকবার!

২০১০ সালে ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আমির। নিষেধাজ্ঞা শেষে অকল্যান্ডে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছিলেন ২০১৬ সালে। সেই সিরিজে মনে রাখার মতো কিছুই করতে পারেননি। তবে পেরেছিলেন মিরপুরে এশিয়া কাপে। ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে নিয়েছিলেন ৩ উইকেট। মনে রাখার মতো আসরটি কাটিয়ে পরের বছর গিয়েছিলেন চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে। আর সেখানে গিয়েই করেন বাজিমাত। পুরো টুর্নামেন্টে মনে রাখার মতো কিছু না থাকলেও ফাইনাল দিয়েই সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন। মাত্র ৬ ওভার বল করে ১৬ রান খরচায় নেন ৩ উইকেট।

সেই জয়ের পর মিথ হয়ে গিয়েছিল আমির ক্রিকেটে ফিরলেই শিরোপা জেতে তার দেশ। এর পেছনে অবশ্য গল্প আছে। সেটা ২০০৯ সালের কথা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই অভিষেক হয় আমিরের। ঐ আসরেই লর্ডসে শ্রীলঙ্কাকে ৮ উইকেটে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল পাকিস্তান। পরের বছরই ইংল্যান্ডে সিরিজ খেলতে গিয়ে হন নিষিদ্ধ। তারপর ২০১৬ সালে ফিরে এসেই পরের বছর জিতে নেন চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। ফাইনালে সেদিন তিনি কাঁদিয়েছিলেন ভারতকে। তারপর অভিমানে অবসর নিয়েছিলেন ২০২০ সালে। চার বছর পর মান ভেঙে যখন ফিরলেন তখন আরেকটি বিশ্বকাপ খেলতে নেমেছেন। তাই প্রসঙ্গটা ফিরে আসছে, ৩২ বছর বয়সী এই পেসার কি এবারও বাজিমাত করতে পারবেন।

৫৯ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলা আমিরের ঝুলিতে আছে ৫৯ উইকেট। সেরা বোলিং ১৩ রানে ৪ উইকেট। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত খেলেছেন ১৮ ম্যাচ। ৬৬ ওভার বল ঘুরিয়ে তিনি শিকার করেছেন ১৮ উইকেট। অর্থাৎ গড়ে প্রতি ম্যাচে নিয়েছেন একটি করে উইকেট। ঝুলিতে আছে তিনটি মেইডেন ওভার। যার মধ্যে একটি ২০০৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে।

তবে আমিরের ভারতের বিপক্ষে খেলা হয়েছে মাত্র দুই টি-টোয়েন্টি ম্যাচে। একটি ২০১৬ সালে এশিয়া কাপে মিরপুরে। অন্যটি সে বছরই বিশ্বকাপে। নিয়েছেন ৪ উইকেট। যার মধ্যে ১৮ রানে ৩ উইকেটে সেরা বোলিং ফিগারটি হয় এশিয়া কাপে। বিশ্বকাপে খেলা একমাত্র ম্যাচে উইকেট সংখ্যাও একটি।

তার সামনে আজ ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলতে নামার সুযোগ। নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হবে ম্যাচটি। যেখানে আরেকবার রোহিত-কোহলিদের উইকেট ভাঙার জন্য মুখিয়ে থাকবেন এই কাটার স্টার।

তবে তার কাটার প্রতিরোধ করতেও প্রস্তুত নিতে ভুলবেন না বিরাটা কোহলিরা। এই আমিরের কারণেই যে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ৭ বছর আগে। রানের খাতা খোলার আগেই ফিরেছিলেন রোহিত। বিরাট পারেননি কোনো অবদান রাখতে। এবার তার সামনে সুযোগ আমিরের কাটার প্রতিরোধ করে লড়াই গড়ে তোলার। সেই নজিরও রেখেছেন গত বিশ্বকাপে। মেলবোর্নে পাকিস্তান আগে ব্যাট করে ১৫৯ রান দাঁড় করিয়েছিল। সেই রান তাড়ায় নেমে শেষ বলে গিয়ে জয় পায় ভারত। যেখানে ব্যাট হাতে ভূমিকা রেখে দলকে জেতান কোহলি। খেলেছিলেন ৫৩ বলে ৮৩ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস।

২০১০ সালে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হলেও তিনি সেবার বিশ্বকাপ খেলতে পারেননি। ২০১২ আসর থেকে তিনি নিয়মিত মুখ। এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টটিতে খেলেছেন ২৮ ম্যাচ। ৭৬.১৩ গড়ে ও ১৩০ স্ট্রাইক রেটে তিনি করেছেন ১১৪২ রান। হয়েছিলেন ২০১৪ ও ২০২২ আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। বিশ্বকাপের মঞ্চে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১৪টি হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ ৮৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন তিনি। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে এই আসরসহ ষষ্ঠ বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন, কিন্তু কোনোদিন শূন্য রানে আউট হননি। আবার পাকিস্তানকে পেলেও জ্বলে উঠে তার ব্যাট। টি-টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত তিনি দলটির বিপক্ষে ১০ ম্যাচ খেলেছেন। ৮১ গড়ে করেছেন ৪৮৮ রান। এসেছে তার ব্যাট থেকে পাঁচটি ফিফটি। পেয়েছেন একটি উইকেটও। তাই বিরাট কোহলি থাকা মানেই পাকিস্তানি বোলারদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্ক।

তাই আজ রাত সাড়ে ৮টায় নিউইয়র্কে পাক-ভারত লড়াইয়ে কে জ্বলে উঠবেন সেটাই দেখার অপেক্ষা। আমিরের কাটারে ওভাল নাকি বিরাটের ব্যাটে ফিরে আসবে মেলবোর্ন, সেটা বলে দেবে সময়।

 

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত