সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মন্ত্রিত্ব নিয়ে অসন্তোষ, বৈষম্যের অভিযোগ মোদীর জোটে

  • জোটের শরীকদের ১১টি মন্ত্রণালয় দিয়েছে মোদি, গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রনালয়গুলো নিজের কাছেই
  • মন্ত্রিসভায় কোন মন্ত্রীর পর পায়নি শিবসেনা, একটি প্রতিমন্ত্রী পদ পেয়েছে মহারাষ্ট্রের দলটি
আপডেট : ১১ জুন ২০২৪, ০৩:৪৪ পিএম

এবারের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় জোটের ওপর ভর করেই চলতি মেয়াদে সরকার গঠন করতে হয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। জোটের শরীকদের ১১টি মন্ত্রণালয় দিয়েছে মোদি, তবে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রনালয়গুলো নিজের কাছেই রেখেছেন তিনি।

কিন্তু এবার মন্ত্রণালয় বণ্টন নিয়েই অসন্তোষ দেখা দিয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটে। ক্ষমতা ভাগাভাগির ক্ষেত্রে বৈষম্যের অভিযোগ তুলেছে বিজেপির দীর্ঘদিনের মিত্র শিবসেনা। মন্ত্রিসভায় কোনও পদ না পেয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে শিবসেনা।

সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে ইকোনমিক টাইমস।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মোদির মন্ত্রিসভায় কোন মন্ত্রীর পর পায়নি শিবসেনা। শুধুমাত্র একটি প্রতিমন্ত্রী পদ পেয়েছে মহারাষ্ট্রের দলটি। এই বিষয়ে একনাথ শিন্ডের নেতৃত্বাধীন দলের শীর্ষ নেতা শ্রীরঙ্গ বার্নে বলেন, নতুন মন্ত্রী পরিষদে অন্যান্য এনডিএ মিত্রদের শতাংশের ভিত্তিতে আমরা একটি মন্ত্রিসভা আশা করেছিলাম।

মন্ত্রিত্ব বণ্টনে বৈষম্যের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, আমরা বিজেপির তৃতীয় বৃহত্তম মিত্র। অনেক কম আসন পাওয়া অন্যান্য মিত্ররাও মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, আমাদের প্রতি বৈষম্য হয়েছে।

যদিও দলটির আরেক নেতা শ্রীকান্ত শিন্ডে স্পষ্ট করেছেন, তারা নিঃশর্তভাবেই মোদী সরকারকে সমর্থন করছেন এবং এর সঙ্গে ক্ষমতার জন্য দর কষাকষি বা আলোচনা জড়িত নয়।

এর আগে রোববার (৯ জুন) শপথ অনুষ্ঠানের ঠিক আগে অজিত পাওয়ারের ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) মন্ত্রিসভার পদ চাওয়া সত্ত্বেও তাদের এমপিরা প্রতিমন্ত্রীর পদ পাওয়ার বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে। এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ার এবং রাজ্যসভার সাংসদ প্রফুল প্যাটেল মন্ত্রিসভায় স্বতন্ত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রীর পদকে "অবমোচন" হিসাবে বর্ণনা করেন।

এ বিষয়ে দলটির নেতা প্রফুল্ল প্যাটেল গত রোববার বলেন যে, আমরা প্রতিমন্ত্রীর পদ গ্রহণ করা উপযুক্ত বলে মনে করছি না। তাই আমরা তাদের [বিজেপি] বলেছি যে আমরা অপেক্ষা করতে প্রস্তুত কয়েক দিনের জন্য। কিন্তু আমরা একটি মন্ত্রিসভা পদ চাই। তারা আমাদের বলেছে, কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। এরপর প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা নেবে।‘

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত