সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আইপিএলে বসে থাকা রাদারফোর্ড বিশ্বকাপে হলেন ম্যাচসেরা

আপডেট : ১৩ জুন ২০২৪, ০৩:১৮ পিএম

ত্রিনিদাদে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে টানা ৩ জয়ে সুপার এইটে উঠে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিউইদের বিপক্ষে ইন্ডিজের ম্যাচ জয়ের নায়ক শেরফান রাদারফোর্ড। ব্যাট হাতে খেলেছেন ৩৯ বলে অপরাজিত ৬৮ রানের ইনিংস।

২০২৪ আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের স্কোয়াডে ছিলেন উইন্ডিজের বাঁ-হাতি এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। কিন্তু কলকাতা এবার নিজেদের তৃতীয় শিরোপা জিতলেও একটি ম্যাচও খেলার সুযোগ হয়নি শেরফান রাদারফোর্ডের।

ম্যাচ খেলতে না পারলেও কেকেআর এর নেটে নিয়মিত অনুশীলন করে গিয়েছেন রাদারফোর্ড। আর সেই পরিশ্রমের ফল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পেলেন তিনি।

ম্যাচের পর আইপিএলের মঞ্চে বাড়তি পরিশ্রমের কথা জানিয়ে রাদারফোর্ড বলেন, 'আমি গেল ২ মাস আইপিএলে ছিলাম। ম্যাচ পাইনি কিন্তু নিজেকে বসিয়ে রাখিনি। আমি সেখানে টানা অনুশীলন করে গিয়েছি। সেখানে অনেক কাজ করেছি, পরিকল্পনা সাজিয়েছি। সবকিছু সহজ রাখতে চেয়েছি এবং নিজের ওপর আস্থা ছিল। এটাই আমার সাফল্যের মূলমন্ত্র।'

রাদারফোর্ড জানান, তিনি চেয়েছিলেন শেষ পর্যন্ত থাকতে। আর সেটি করতে পেরেই এমন দারুণ ইনিংস খেলেছেন। 'আজ যখন ব্যাটাররা আসা-যাওয়ার মাঝে ছিল তখনও নিজের ওপর ভরসা ছিল যে আমি পারব। আমি চেয়েছিলাম খেলাটা শেষ পর্যন্ত নিতে, টিকে থাকতে। ড্যারেন স্যামিও আমাকে এটা বলেছিল যে শেষ পর্যন্ত থেকো। উইকেটে থাকতে থাকতে মনে হয়েছে আমি ছন্দ পেয়েছি। এরপরই এমন ইনিংস খেলতে পারলাম।'

উইন্ডিজের হয়ে ১৫ ম্যাচ খেলা রাদারফোর্ডের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস এটি। তার অপরাজিত ৬৮ রানের ইনিংসে ছিল ২ চার ও ৬ ছক্কা।

রাদারফোর্ডের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুটা বাংলাদেশে বিপক্ষে, ২০২২ এর ডিসেম্বরে মিরপুরে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে উইন্ডিজের হয়ে খেলা শুরু করেন রাদারফোর্ড।

২০২৩ সালে কানাডার গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি লিগে ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়ে পুরস্কার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে আধা একর জমি পেয়েছিলেন রাদারফোর্ড। তখন পুরস্কার হিসেবে জমি জেতায় এসেছিলেন আলোচনায়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত