সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

দিল্লিতে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক আজ 

আপডেট : ২২ জুন ২০২৪, ০৯:১১ এএম

দিল্লিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক আজ। দুদেশের সম্পর্ক আরও মজবুত করতে সই হবে বেশ কয়েকটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আমন্ত্রণে দু'দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে গতকাল শুক্রবার ভারতে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠনের পর ভারতে কোনো সরকারপ্রধানের এটিই প্রথম দ্বিপাক্ষিক সফর।

দুই নিকট প্রতিবেশীর সম্পর্কের ভবিষ্যৎ পথরেখা নিয়ে আলোচনার জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ শনিবার দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে আলোচনায় বসছেন। সহযোগিতার বর্তমান ধারা অব্যাহত রেখে নতুন কোন কোন ক্ষেত্রে সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়া যায়, তা নিয়ে আলোচনা করবেন তারা।

গতকাল সন্ধ্যায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন। সাক্ষাতের ছবি দিয়ে জয়শঙ্কর ‘এক্স’ হ্যান্ডলে লেখেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে আমি উৎফুল্ল। আমাদের দুই দেশের সম্পর্ক কত ঘনিষ্ঠ ও চিরন্তন, এই সফর তার পরিচায়ক। আমাদের বিশেষ সম্পর্ক আরও জোরদার করতে তাঁর নেতৃত্ব প্রশংসনীয়।’

আজ দুই শীর্ষ নেতার বৈঠকের পর সহযোগিতার নানা বিষয়ে ১০টির বেশি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই ও নবায়ন হতে পারে। দুই দেশের কূটনৈতিক সূত্র থেকে জানা যায়, দুই প্রধানমন্ত্রী এবার শীর্ষ বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন ভিন্ন সময় আর ভিন্ন পরিস্থিতিতে। আগামী মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে শেখ হাসিনার বেইজিং যাওয়ার কথা রয়েছে। পরিবর্তিত ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতিতে এবার দুই দেশের সম্পর্কের চেয়ে যেন বড় হয়ে উঠছে চীন প্রসঙ্গ।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে শনিবার (২২ জুন) সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে লালগালিচা বিছানো হবে। এসময় তার ভারতীয় সমকক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে অভ্যর্থনা জানাবেন এবং দুদেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গার্ড অব অনারও পরিদর্শন করবেন। এরপর তিনি রাজঘাটে ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। সেখানে পরিদর্শন বইয়ে সই করবেন প্রধানমন্ত্রী।

এরপরে নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে একান্ত বৈঠক এবং প্রতিনিধি পর্যায়ে আলোচনার জন্য হায়দরাবাদ হাউসে যাবেন শেখ হাসিনা। উভয়েই সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি সই অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করবেন। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রী বিবৃতি দেবেন। হায়দরাবাদ হাউসে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত ভোজসভায় যোগ দেবেন তিনি। বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখারের সঙ্গে তার সচিবালয়ে সাক্ষাৎ করবেন। এরপর সন্ধ্যায় ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে দেখা করবেন তিনি।

সফর শেষে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে পালাম বিমানবন্দর থেকে ভারতের রাজধানী ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী। রাত ৯টায় তিনি ঢাকায় অবতরণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত