মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন স্থগিতের আহ্বান জাতিসংঘের

আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:২৭ পিএম

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের পরিকল্পনা স্থগিত করার জন্য বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটির মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরের শীর্ষ এক তদন্ত কর্মকর্তা জানিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠালে সেখানে তারা ফের নির্যাতনের শিকার হতে পারেন।

গত ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযানে মুখে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এই অভিযানে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা নিহত হয় বলে জানায় মানবাধিকার সংস্থাগুলো।

গত ৩০ অক্টোবর বাংলাদেশ ও মিয়ানমার নভেম্বরের মাঝামাঝিতে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসন শুরু করার বিষয়ে সম্মত হয়। কিন্তু রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য রাখাইনে এখনও অনুকূল পরিবেশ তৈরি হয়নি বলে মনে করে ইউএনএইচসিআর।

মিয়ানমারে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দূত ইয়াঙ্গি লি বলছেন, আমি বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সরকারকে জোরালোভাবে বলছি রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের পরিকল্পনা স্থগিত করতে।

সেইসঙ্গে নাগরিকত্ব প্রদান, স্বাধীনভাবে চলাফেরা স্বাধীনতা এবং সরকারি চাকরিতে প্রবেশে রোহিঙ্গাদের দীর্ঘ দিনের দাবি মেনে নিতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

লি বলেন, মিয়ানমার যদি রোহিঙ্গাদের এসব দাবি পূরণের নিশ্চয়তা না দেয় তাহলে তাদের প্রত্যাবাসন হুমকির মুখে পড়বে। সেইসঙ্গে তারা আবারও ভয়াবহ সহিংসতার শিকার হবে।

ইউএনএইচসিআরের শীর্ষ এক তদন্ত কর্মকর্তা আল জাজিরাকে বলেন, তার কাছে নির্ভরযোগ্য তথ্য আছে প্রত্যাবাসনের তালিকায় নাম ওঠায় বাংলাদেশের কক্সবাজারের শরণার্থী ক্যাম্পের রোহিঙ্গারা আতঙ্কে আছেন। নিপীড়নের সেইসব যন্ত্রণা এখনও তারা ভুলতে পারেননি।

গত মাসে মিয়ানমার সরকার জানায়, প্রথম প্রত্যাবাসনের জন্য তারা পাঁচ হাজার রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারের অধিবাসী বলে নিশ্চিত করেছে। তাদের মধ্যে দুই হাজার জনকে নভেম্বরে ফিরিয়ে নেয়া হবে।

তবে জাতিসংঘ এই প্রত্যাবাসন পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে। তারা দাবি করেছে, তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের পরামর্শ না করেই এ পরিকল্পনা করা হয়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতারেসের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেন, প্রত্যাবাসনের এ পরিকল্পনা ইউএনএইচসিআরকে বিস্মিত করেছে। শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করা প্রধানতম এই সংস্থার সঙ্গে এনিয়ে কোনো পরামর্শই করা হয়নি।

কক্সবাজারের ইউএনএইচসিআরের সিনিয়র এক্সটার্নাল অফিসার ক্রিস মেলজার আল জাজিরাকে বলেন, এই চুক্তির সঙ্গে ইউএনএইচসিআরের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

তিনি বলেন, নির্দিষ্ট সময় ও তালিকা করে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিরুদ্ধে আমাদের পরামর্শ ছিল। সেখানে ফিরে যাওয়া এবং বসবাস টেকসই করতে এমনটা বলেছি।

ক্রিস আরও বলছেন, এটি অস্পষ্ট যে সব রোহিঙ্গাদের নাম তালিকায় রাখা হচ্ছে সেটি তারা জানে কিনা। তাদেরকে সে তথ্য জানাতে হবে। এমনকি তাদের কাছে এটিও জেনে নিতে হবে যে তারা আসলে ফেরত যেতে চায় কিনা। নয়তো এভাবে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া হবে অপরিপক্ব সিদ্ধান্ত।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত