বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ভারতের ‘সমান হতে’ পাকিস্তানকে যে ক্ষেপণাস্ত্র দিচ্ছে চীন

আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৩৮ এএম

পাকিস্তানি নৌবাহিনীর জন্য নতুন প্রজন্মের ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করছে চীন। ২০২১ সাল থেকে দেশটির নৌ-সমরাস্ত্রে এটি যুক্ত হবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এই ক্ষেপণাস্ত্রটি যোগ হওয়ার ফলে শক্তির দিক থেকে ভারতীয় নৌবাহিনীর সঙ্গে দূরত্ব কমে আসবে পাকিস্তানের। দুপক্ষই সমানে সমান হবে।

ভারত ২০০৫ সালে এই ক্ষেপণাস্ত্র নিজেদের অস্ত্রভান্ডারে যুক্ত করে। এতদিন দেশটির ব্রাহ্মোস ক্ষেপণাস্ত্র ছিল অপ্রতিদ্বন্দ্বী।

সিএম-৩০২ ক্ষেপণাস্ত্রটি শব্দের চেয়ে তিন গুণ গতিসম্পন্ন। এটি অনেক দূরে ‘নির্ভুল’ আঘাত হানতে পারে।

ভারত মহাসাগরে কৌশলগত দিক থেকে শক্তিশালী হতে পাকিস্তানকে অত্যাধুনিক যুদ্ধজাহাজও বানিয়ে দিচ্ছে চীন। চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই জাহাজটি অন্য যে কোনো জাহাজের তুলনায় বেশি আধুনিক। ধারণা করা হচ্ছে এই ক্ষেপণাস্ত্রটি ওই জাহাজের প্রাথমিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

জানুয়ারির শুরুর দিকে চীনের রাজ্য জাহাজ নির্মাণ করপোরেশন জানিয়েছিল, চাইনিজ নেভির তত্ত্বাবধানে নির্মাণাধীন ‘টাইপ ০৫৪এপি’ জাহাজটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণেও সক্ষম হবে। এখন বোঝা যাচ্ছে ‘সিএম-৩০২’ সেই ক্ষেপণাস্ত্র।

‘টাইপ ০৫৪এপি’ পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা চীনা কর্মকর্তারা এনডিটিভিকে বলেন, ‘নতুন সক্ষমতার কারণে এটি নতুন হুমকি। কিন্তু ভারতীয় নৌবাহিনীকে টেক্কা দিতে হলে বেশ কিছু দিন অপেক্ষা করতে হবে।’

সামরিক চুক্তির অংশ হিসেবে চীন পাকিস্তানকে আটটি সাবমেরিনও দেবে। এর মধ্যে প্রথম চারটি ২০২৩ সালের মধ্যে পাকিস্তানের হাতে তুলে দেওয়া হবে। বাকি চারটি দেওয়া হবে ২০২৮ সালের মধ্যে।

পাকিস্তান চীনের কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কিনে থাকে। এর মধ্যে ট্যাংক থেকে শুরু করে যুদ্ধজাহাজ, যুদ্ধবিমানও রয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত