শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জাহালমের ঘটনায় ‘গাফিলতি’ খুঁজতে তদন্ত কমিটি

২০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ

আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫:০৫ এএম

সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির তদন্তে টাঙ্গাইলের সালেকের পরিবর্তে জাহালমকে ৩৩ মামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি করা ও কারাগারে তিন বছর রাখার ঘটনায় কমিটি করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ কমিটিকে ২০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

দুদকের উপপরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, কমিশন সচিব শামসুল আরেফিন স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশের মাধ্যমে এই কমিটি করা হয়। এতে বলা হয়, ‘২০১২ সালে দায়ের করা দুদকের ৩৩টি মামলায় মূল আসামি আবু সালেকের পরিবর্তে

ভুল ব্যক্তি জাহালমকে চার্জশিটভুক্ত ও কারাগারে পাঠানো হয়। এ সংক্রান্ত ঘটনায় তদন্তপূর্বক দায়-দায়িত্ব নিরূপণের জন্য কমিশনের পরিচালক (লিগ্যাল) আবুল হাসনাত আবদুল ওয়াদুদ নেতৃত্বে এক সদস্যের একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

কমিটি গঠনের বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার দুদক কমিশনার আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা উচ্চপর্যায়ের কমিটি করেছি। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার সে অনুযায়ী যে ভুলগুলো হয়েছে, এর মধ্যে যারা দায়ী আমরা তাদের কাউকে ছাড় দেব না। সে আমাদের অফিসার হোক বা অন্য কোনো ডিপার্টমেন্টের হোক।’

দুদকের অধিকতর তদন্তে জাহালম নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আগের তদন্ত কাজে ঘাটতি একটু না হলে তো এই পর্যায়ে যাবে না, এটা তো অস্বীকার করার কিছু নেই। জাহালমকে সব মামলা থেকে প্রত্যাহার করতে আমরা আদালতে আগেই রিপোর্ট সাবমিট করেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘তদন্ত কমিটির প্রধান একজন জেলা জজ। তিনি আমাদের পরিচালক। কার গাফিলতিতে আবু সালেক হিসেবে জাহালম হাজত খেটেছে, ভুলটা কোথায় তা বের হবে।’

কারাবাসের জন্য জাহালমকে ক্ষতিপূরণ দিতে টিআইবির পক্ষ থেকে দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘মাননীয় হাইকোর্ট যে সিদ্ধান্ত দেবেন আমরা সেইটায় মাথা পেতে নেব।’

গতকাল দুদকের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘তদন্ত কমিটিকে বলা হয়েছে, সুনির্দিষ্ট কার্যপরিধির আলোকে প্রকৃত আসামি আবু সালেকের পরিবর্তে জাহালমকে আসামি করার প্রেক্ষাপট, ৩৩টি মামলায় অনুসন্ধান ও তদন্ত পর্যায়ে পদ্ধতিগত ত্রুটি-বিচ্যুতিসহ সংশ্লিষ্টদের দায়-দায়িত্ব নির্ধারণ, ব্যাংক কর্মকর্তাসহ অন্যান্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টতা নির্ধারণ ও অভিযুক্তের শনাক্তকারীদের চিহ্নিতকরণ, তাদের দায়-দায়িত্ব নির্ধারণ করতে। পাশাপাশি ভুলের এই ঘটনাটি কমিশনের দৃষ্টিগোচর হওয়ার পরও জাহালমকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করতে বিলম্বের কারণ উদ্ঘাটন করতে বলা হয়। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে এ জাতীয় ঘটনা রোধে অনুসন্ধান ও তদন্তের পদ্ধতিগত কী কী সংস্কার প্রয়োজন, সে বিষয়ে সুপারিশসহ প্রতিবেদন কমিশনে পেশ করতে বলা হয়।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত