রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

স্টাফ কলেজে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি প্রধানমন্ত্রী

সাংবিধানিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় ভূমিকা চাই

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:০১ এএম

সশস্ত্র বাহিনীকে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক হিসেবে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশ ও জাতির কল্যাণে এবং গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। যাতে আমরা দেশের উন্নয়নের চলমান ধারা অব্যাহত রাখতে পারি। তিনি বলেন, জাতিসংঘ মিশনে বিভিন্ন দেশে শান্তি রক্ষায় বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুর ক্যান্টনমেন্টের শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি) ২০১৮-১৯-এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, সশস্ত্র বাহিনী সততা ও পেশাদার দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে বহির্বিশ্বে সুনাম ও খ্যাতি অর্জন করেছে।

তিনি ডিএসসিএসসি ২০১৮-১৯ কোর্সের সব গ্র্যাজুয়েটকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান এবং তাদের পেশাদার, সামাজিক ও পারিবারিক জীবনে সাফল্য কামনা করেন।গ্র্যাজুয়েটিং কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই কোর্স আপনাদের অর্পিত দায়িত্ব দক্ষতার সঙ্গে পালনে এবং যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী করবে। আপনারা সবাই এখন উচ্চপর্যায়ের নেতৃত্ব গ্রহণ করতে প্রস্তুত। এ বছর মোট ১১ জন নারী কর্মকর্তা গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতি বছর উল্লেখযোগ্যসংখ্যক নারী  কোর্সে অংশগ্রহণ অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। আমি আশা করি ভবিষ্যতে নারী কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণ আরও বাড়বে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল এনায়েত উল্লাহ।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমানে বিশ্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থায় নতুন নতুন পরিবর্তনের ফলে সামরিক বাহিনীর ভূমিকা ও দায়িত্বে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা। সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত