সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পটিয়া বাইপাস সড়ক মার্চের মধ্যে উদ্বোধনের আশা

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:১২ এএম

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া সদরের ইন্দ্রপুল থেকে দক্ষিণে গিরিশ চন্দ্র বাজার পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার দূরত্বের বাইপাস সড়ক নির্মাণকাজ এখন শেষ পর্যায়ে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) জানিয়েছে, মার্চের মধ্যেই পটিয়া সদরকে পাশ কাটিয়ে এই বাইপাস সড়ক দিয়ে যান চলাচল করতে পারবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যানবাহন চলাচলে ৩০ মিনিট সময় কমবে বলে আশা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে পটিয়া সদরের তীব্র যানজট ও ভোগান্তি থেকে মুক্তির পথ মিলতে পারে।

সওজের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ১৮ মিটার প্রস্থের চার লেনের বাইপাস সড়ক নির্মাণ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৩ কোটি টাকা। ২০১৬ সালে এই বাইপাস সড়ক নির্মাণকাজ পটিয়ার সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরী উদ্বোধন করেছিলেন। পরবর্তী সময়ে ভূমি জটিলতার কারণে নির্মাণকাজ কিছুদিন বন্ধ থাকলেও ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এই বাইপাস সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ২০১৮ সালের ৩০ জুন প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদ ধরা হলেও পরবর্তী সময়ে তা এক বছর বাড়ানো হয়।

প্রকল্পের অধীনে ভূমি অধিগ্রহণ, শ্রীমাই খালের ওপর একটি আরসিসি সেতু তৈরি, ১৯টি আরসিসি কালভার্ট তৈরি, ইউটিলিটি অপসারণ, মাটি খননকাজ, ফুটপাত নির্মাণসহ অন্যান্য কাজ এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। এখন চলছে কার্পেটিংয়ের কাজ।

সওজের পটিয়া উপবিভাগীয় প্রকৌশলী সাখাওয়াত হোসেন দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ পটিয়ার বাইপাস সড়ক নির্মাণকাজ এরই মধ্যে ৮০ ভাগ শেষ হয়েছে। শ্রীমাই খালের ওপর একটি সেতু, ১৯টি কালভার্ট নির্মাণকাজ পুরোপুরি শেষ। পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে তিন কিলোমিটার সড়কের কার্পেটিং শেষ। চলছে বৈদ্যুতিক খুঁটি বসানোর কাজ। রাস্তার পাশে ড্রেন নির্মাণসহ আরও কিছু আনুষঙ্গিক কাজ বাকি রয়েছে। এগুলো চলমান রয়েছে। আগামী মার্চ মাসের মধ্যে এই বাইপাস সড়ক পুরোপুরি যান চলাচলের উপযোগী হবে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত