মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

শেষ ওভারের রোমাঞ্চে সিরিজ নিউ জিল্যান্ডের

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭:৩৫ পিএম

আগে ব্যাট করতে নেমে এক দল দুই শতাধিক রানের স্কোর গড়ল। লক্ষ্য তাড়া করতে নামা দলও দু শ পেরোল। অর্থাৎ চার শতাধিক রান হলো একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে। ক্রিকেট রোমান্টিকদের মন ভরতে আর কি চাই! হ্যামিল্টনে ভারত ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচের সারসংক্ষেপ এটি। ম্যাচটিতে রোমাঞ্চকর ছড়িয়ে জয় নিউজিল্যান্ডের।

রোববার তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষটি ৪ রানে জিতে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। এই জয়ে সিরিজও ২-১ এ নিজেদের করেছে ব্ল্যাক ক্যাপসরা।

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড ৪ উইকেটে ২১২ রানের পুঁজি গড়ে। জবাবে ভারত থেমেছে ৬ উইকেটে ২০৮ রান করে। শেষ ওভারে ১৬ রানের সমীকরণ ছিল দলটির সামনে। টিম সাউদির করা ওভারে দলটি নিতে পেরেছে ১১ রান।

নিউজিল্যান্ডের পাহাড় স্কোরে সবচেয়ে বড় অবদান কলিন মুনরোর। আগের দিনই পেয়েছেন বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম দুই ওয়ানডেতে দলে জায়গা হারানোর খবর। সেই জেদ থেকেই বুঝি ওপেন করতে নেমে ৪০ বলে ৭২ রানের এক ইনিংস খেললেন। হাঁকালেন ৫টি করে ছক্কা ও চার।

আরেক ওপেনার টিম সাইফার্ট খেলেছেন ২৫ বলে ৪৩ রানের ইনিংস। মুনরো-সাইফার্ট উদ্বোধনী জুটিতে যোগ করেছিলেন ৮০ রান। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ২৭ ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ১৬ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলেন। ভারতের পক্ষে সর্বাধিক ২ উইকেট নেন কুলদিপ যাদব। ১টি করে উইকেট নিয়েছেন ভুবনেশ্বর কুমার ও খলিল আহমেদ।

জবাব দিতে নেমে রোহিত শর্মা (৩৮), বিজয় শঙ্কর (৪৩), রিশভ পান্তের (২৮) ব্যাটে এগিয়েছে ভারত। হার্দিক পান্ডিয়া পাঁচে নেমে করেন ২১ রান। দিনেশ কার্তিক ও ক্রুনাল পান্ডিয়ার ব্যাটে শেষ ওভার পর্যন্ত জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে রাখে ভারত। কিন্তু সাউদি প্রথম পাঁচ বলে দিলেন মাত্র ৪ রান। ম্যাচটা ওখানেই জিতে যায় কিউরা। কার্তিক ৩৩ ও পান্ডিয়া ২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মিচেল স্যান্টনার ও ডারলি মিচেল সর্বাধিক ২টি করে উইকেটে নিয়েছেন। দারুণ ব্যাটিংয়ের জন্য ম্যাচসেরা হয়েছেন কলিন মুনরো।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড: ২১২/৪ (২০ ওভার) (সাইফার্ট ৪৩, মুনরো ৭২, গ্র্যান্ডহোম ৩০; কুলদিপ ২/২৬)

ভারত: ২০৮/৬ (২০ ওভার) (রোহিত ৩৮, বিজয় ৪৩, পান্ত ২৮, কার্তিক ৩৩*; স্যান্টনার ২/৩২, ডারলি মিচেল ২/২৭)

ফল: ভারত ৪ রানে জয়ী।

সিরিজ: নিউজিল্যান্ড ২-১ এ জয়ী।

ম্যাচসেরা: কলিন মুনরো।

সিরিজ সেরা: টিম সাইফার্ট।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত