সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘গোল্ডেন রাইস’ বন্ধের দাবি কৃষক ফেডারেশনের

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮:৪৬ পিএম

দেশি জাতের বীজ রক্ষার দাবি তুলে ধানের নতুন জাত ‘গোল্ডেন রাইস’ বন্ধের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনসহ কয়েকটি সংগঠন। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জায়েদ ইকবাল খান বলেন, গোল্ডেন রাইস একটি জেনেটিক্যালি মোডিফাইড ধান। বহুজাতিক কোম্পানি উদ্ভাবিত এই ধানে ভিটামিন 'এ' রয়েছে বলে প্রচার করা হচ্ছে, যা মানুষের পুষ্টির চাহিদা ও রাতকানা রোগ দূর করবে। কিন্তু এসব কোম্পানিগুলোর ভুল প্রচারণা। 

তিনি বলেন, গোল্ডেন রাইসে অতিমাত্রায় সংক্রমণ ঘটে, যা আশপাশের জমিতে ছড়িয়ে যায়। শুধু তাই নয়, এটি পানি, মাটি ও বায়ুর মাধ্যমে ক্রস পলিনেশন অথবা এক প্রজাতির পরাগ রেণু, যা আরেক প্রজাতির পরাগকে নিষিদ্ধকরণ করে।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ গোল্ডেন রাইস চালু হলে কৃষি ও কৃষকের চরম ক্ষতি হবে। এ ধান বাংলাদেশে চাষ করা হলে কৃষকের নিজস্ব বীজ সংরক্ষণ ও উৎপাদন প্রক্রিয়া চূড়ান্তভাবে ব্যাহত হবে।

সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তারা কিছু দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো— বাংলাদেশে গোল্ডেন রাইসের প্রবর্তন না করা, বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় থেকে গোল্ডেন রাইসকে ছাড়পত্র না দেওয়া। এছাড়া, বিটি বেগুনের বাণিজ্যিক চাষাবাদ বন্ধ করা, পরিবেশ বিধ্বংসী ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর কোনও প্রকার ফসল চাষাবাদের অনুমোদন না দেওয়া এবং অতিমাত্রায় রাসায়নিক সার ও কীটনাশকনির্ভর ফসল চাষের অনুমোদন না দেওয়ার দাবিও জানান তারা।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন— বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের সভাপতি বদরুল আলম, ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর শাখার সভাপতি আবুল হোসাইন, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এএএম ফয়েজ হোসেন প্রমুখ।

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত