শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নাটোরে কৃষিজমিতে পুকুর খননের মহোৎসব

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:২৭ এএম

চলনবিল অধ্যুষিত নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চারদিকে ছিল সবুজের সমারোহ ফসলের মাঠ। এখন সেই ফসলের মাঠে চলছে পুকুর খননের মহোৎসব। স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাইকিং এবং উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপেও বন্ধ হচ্ছে না ফসলি জমিতে পুকুর খনন। এর ফলে কমছে কৃষিজমি। বিলের মধ্যে পুকুর, দিঘি খননের ফলে উর্বর ফসলের মাঠে সৃষ্টি হচ্ছে স্থায়ী জলাবদ্ধতা। পুকুরের আশপাশের কৃষকরাও আবাদ করতে পারছেন না। সম্প্রতি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা কৃষিজমিতে পুকুর খনন বন্ধে মানববন্ধন করেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার মশিন্দা মাঝপাড়া বিশ্বরোড সংলগ্ন ৬ বিঘা কৃষিজমিতে চাঁচকৈড় খোয়ারপাড়ার মৃত সাত্তার মোল্লার ছেলে সুরুজ (৩৬) মাটিকাটা যন্ত্র ভেকু দিয়ে পুকুর খনন করছেন। বিয়াঘাট ইউনিয়নের জ্ঞানদানগর মৌজার ধলার বিলে খননযন্ত্র বসিয়ে পুকুর খনন করছেন ইউপি সদস্য শীতল আলী। আর এসব কৃষিজমির চারদিকে চলছে ইরি-বোরো ধানের আবাদ। উপজেলার চরপাড়া গ্রামের হবি মন্ডেলের ১০ বিঘা জমিতে বাচ্চু মিঞা টাকার বিনিময়ে পুকুর খনন করছেন। একই রাণীগ্রামের বিলকাঠোর মৌজায় মোজাহার মেম্বার, করিম, শফি, বকুল, সাইফুলদের ২৮ বিঘা কৃষিজমিতে পুকুর খননযজ্ঞ চলছে।

উপজেলার ধারাবারিষা ইউপির সাবেক সদস্য মোজাহার আলী তার কৃষিজমিতে পুকুর খনন করছেন। তিনি জানান, ইউনিয়নের সার্জেন্ট মোস্তাক মোহন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিনের ভাতিজা আওয়ামী লীগ নেতা মিল্টন ও আমির হোসেনের কাছ থেকে তিনি বিঘাপ্রতি ২০ হাজার করে টাকা পাচ্ছেন, সঙ্গে বিনামূল্যে পুকুরও খনন দিচ্ছেন। আর কৃষিজমির মাটি তারা বিক্রি করছেন বিভিন্ন ইটভাটায়।  এদিকে পুকুর খনন বন্ধে স্থানীয় আব্দুল খালেক, আহসানুল হক ও বদিউজ্জামান নামের তিন কৃষক পুকুর খনন বন্ধে জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেন।

কৃষকরা জানান, গুরুদাসপুর পৌর এলাকার অবৈধ ইটভাটা বন্ধ হলে এলাকায় পুকুর খনন এমনিতেই কমে যাবে। পুকুর খননকারী কয়েকজন জানান, বৈধ অনুমোদন না থাকলেও উপজেলা প্রশাসনের এক কর্মচারীর কাছ থেকে মৌখিক অনুমোদন নিয়েই এসব পুকুর খনন চলছে। কৃষিজমিতে পুকুর খনন বন্ধে কার্যকরী আইন প্রণয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন চলনবিল নদীরক্ষা আন্দোলন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আতহার হোসেন।

নাটোর জেলা প্রশাসক শাহরিয়াজ জানান কৃষিজমিতে পুকুর খনন ও অবৈধ ইটভাটা বন্ধে প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. আব্দুল কুদ্দুস জানান, এসব পুকুর খনন বন্ধে তার পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় মাইকিং করে অনুরোধ করা হয়েছে। পুকুর খনন চক্রের সঙ্গে প্রশাসনের কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগসাজশ রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আসলে শস্যের মধ্যেই ভূত রয়েছে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত