বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জিয়ার মাজারে মোশাররফ

‘ভোটার দিবস’ পালন জনগণের সঙ্গে তামাশা

আপডেট : ০২ মার্চ ২০১৯, ০৪:০২ এএম

জাতীয় ভোটার দিবস পালনের নামে ‘ভোটাধিকার হরণকারী’ সরকার জনগণের সঙ্গে তামাশা করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ‘হতাশাজনক’ ভোটার উপস্থিতির মধ্যে নৌকার প্রার্থীর বড় অঙ্কের ভোট পাওয়া নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি।

মোশাররফ বলেন, জনগণ আশ্চর্যান্বিত যে পরপর দুটি ঘটনা বিশেষ করে ৩০ ডিসেম্বরের সংসদ নির্বাচন ও গত বৃহস্পতিবারের ঢাকা সিটির উপনির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। তাদের ভোটধিকার হরণ করা হয়েছে। সেখানে আজকে সরকার ভোটার দিবস পালন করে। ভোটার যেখানে ভোট দিতে পারে না, সেখানে আজকে স্লোগান হচ্ছে, ‘ভোটার হোন, ভোট দিন’ এটা অত্যন্ত হাস্যকর। এই সরকারই জনগণের ভোটের অধিকার হরণ করে এই দিবস পালন করে আজকে এটাকে একটা তামাশায় পরিণত করেছে।

নির্বাচনে ভোটার কম আসার কারণ জানতে চাইলে এই বিএনপি নেতা বলেন, এটা পরিষ্কার যে, জনগণ এই ভোট প্রত্যাখ্যান করেছে। এই মেয়র উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির যিনি প্রার্থী ছিলেন তিনিই প্রধান বিরোধী দল। এই প্রার্থী বলেছেন, তিনি প্রায় ৪০টি কেন্দ্রে গেছেন, কোনো ভোটার দেখেন নাই, শতকরা ৫ শতাংশ ভোটও পড়ে নাইÑতার বক্তব্যই স্পষ্ট।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে ভোটার উপস্থিতির হতাশাজনক চিত্র গণমাধ্যমের কাছে তুলে ধরেছেন একাধিক মেয়রপ্রার্থী। তাদের কেউ কেউ বলেছেন, জনগণ একাদশ সংসদ নির্বাচনের ‘আতঙ্ক’ ভুলতে পারেনি।

এ প্রসঙ্গ টেনে মোশাররফ বলেন, ‘জনগণ ভোটকেন্দ্রে যায়নি, কেউ ভোট দিতে দেখেনি। অথচ পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ৮ লাখ ৩৯ হাজার ভোট পেয়েছেন। এই ভোট কোথা থেকে আসল? জনগণের কাছে পরিষ্কার হয়েছে, সংসদ নির্বাচনে যেভাবে আগের রাতে ভোট ডাকাতি হয়েছিল একই প্রক্রিয়ায় গত বৃহস্পতিবার প্রায় ৩১ শতাংশ ভোট পড়েছে দেখানো হয়েছে। সরকার তাদের সিস্টেমের মাধ্যমে এটা সম্পন্ন করেছে।’

তিনি বলেন, দেশের জনগণ গত সংসদ নির্বাচনে এই সরকারের, এই প্রশাসনের যে চেহারা দেখেছে, তাতে ভোটের প্রতি তাদের অনাস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রতিবাদস্বরূপ তারা ভোট দিতে যায়নি। জনগণ এই সরকার, তাদের বশংবদ নির্বাচন কমিশনকে বিশ্বাস করে না। ভোটাররা সরকার ও কমিশনকে প্রত্যাখ্যান করেছে।

মোশাররফ হোসেন বলেন, এই আওয়ামী লীগ আর বাংলাদেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে পারবে না। বিএনপিকেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে এবং ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এর অংশ হিসেবে বিএনপির পুনর্গঠন চলছে। সর্বক্ষেত্রে পুনর্গঠনের মাধ্যমে বিএনপি দলকে শক্তিশালী করে ঘুরে দাঁড়াবে। এরপর দেশের গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করবে এটাই আজকে বিএনপির শপথ।

জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবী দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার বেলা ১১টায় সংগঠনের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম মাহতাব ও সদস্য সচিব আবদুর রহিমের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা জিয়ার মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মৎস্যজীবী দলের নাদিম চৌধুরী, সেলিম মিয়া ও জাকির হোসেন খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত