শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পাউবোর প্রকৌশলী তারেকের দুর্নীতিতে ডুবছে নদীর তীর

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ০৩:৫৩ এএম

অনিময় ও দুর্নীতির অভিযোগে কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী এস এম তারেক বিন ছগিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। জেলার চকরিয়ায় মাতামুহুরী নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা এই কর্মকর্তাকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সুপারিশ অনুযায়ী দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানান কক্সবাজার পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী নয়ন কুমার ত্রিপুরা।     দুদকের এনফোর্সমেন্ট ইউনিটের প্রধান ও মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী দেশ রূপান্তরকে জানান, মাতামহুরী নদীর তীর সংরক্ষণের জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয় কক্সবাজার পাউবো। দরপত্র অনুযায়ী প্রকল্পের সিসি ব্লক নির্মাণে সিলেটের পাথর ও বালি ব্যবহারের কথা রয়েছে। কিন্তু এসবের পরিবর্তে ওই ব্লক নির্মাণে ময়লা বালু (পলিমাটি) এবং নিম্নমানের সিমেন্ট ব্যবহার করা হয়। এছাড়া সিমেন্ট দেওয়া হয় নির্দিষ্ট অনুপাতের চেয়ে অনেক কম। এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি দুদক সেখানে অভিযান চালায়। অভিযানে অভিযোগের সত্যতা খুঁজে পান দুদক কর্মকর্তারা। বিষয়টি দুদকের পক্ষ থেকে পাউবোর ঊর্ধ্বতন    কর্র্তৃপক্ষকে জানানো হলে ওই দিনই প্রকৌশলী তারেককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

কক্সবাজার পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী নয়ন কুমার ত্রিপুরা বলেন, ‘ওই প্রকল্পে কিছুটা অনিয়ম হয়েছে। এজন্য তারেক বিন ছগিরকে আপাতত অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। দুদকের অভিযোগ পেয়ে পাউবোর মহাপরিচালক মাকসুদুর রহমানের নির্দেশে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।’

জানতে চাইলে তারেক বিন ছগির দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘কাজে নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিজে কাজ না করে সরকারদলীয় স্থানীয় এক প্রভাবশালী নেতাকে সাব-কন্ট্রাক্ট দেয়। এই দুই প্রতিষ্ঠানের দ্বন্দ্বের কারণে বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। বিশেষ করে আমাদের জনবলের অভাবে এই কাজে তেমন নজর দেওয়া হয়ে ওঠেনি। এই সুযোগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তড়িঘড়ি করে কাজ শেষ করার চেষ্টা করে। কিন্তু এরইমধ্যে সব দোষ আমার ওপর চলে এসেছে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত