সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সুলতানের সদস্যপদ বাতিলে আজ স্পিকারকে চিঠি দেবে ঐক্যফ্রন্ট

আপডেট : ১২ মার্চ ২০১৯, ০৫:১১ এএম

গণফোরাম থেকে বহিষ্কৃত সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের সদস্যপদ বাতিলের দাবি জানিয়ে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিনকে আজ মঙ্গলবার চিঠি দেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠিতে বাতিলের দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরা হবে। গতকাল বিকেলে মতিঝিলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে জানিয়েছেন জোটের একাধিক নেতা।

জোটের প্রধান শরিক বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন একসময়কার আওয়ামী লীগ নেতা সুলতান মনসুর।

ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্তের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে দেশ রূপান্তরকে তিনি বলেন, আমার সদস্যপদ বাতিল হবে না। কারণ আমার দল সংসদে যোগ দিচ্ছে না। কোনো সংসদ সদস্য যখন দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সংসদে ভোটাভুটিতে অংশ নেন তখন সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ কার্যকর হয়। ফ্রন্টের ওই নেতারা দেশ রূপান্তরকে জানান, গত ৭ মার্চ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন সুলতান মনসুর। একইদিন সন্ধ্যায় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পর জানানো হয়, তাকে গণফোরাম থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটি থেকেও তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও ঘোষণা দেওয়া হয় ফ্রন্টের পক্ষ থেকে। এরপর গতকাল ফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় স্পিকারকে চিঠি দেওয়ার।

সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, দল থেকে পদত্যাগ করলে এমপি পদ হারাতে হবে। কিন্তু দল থেকে বহিষ্কার হলে কী হবে তা উল্লেখ নেই। এমন পরিস্থিতিতে কোন যুক্তি দেখিয়ে সুলতান মনসুরের সংসদ সদস্য পদ বাতিলের আবেদন জানানো হবে জানতে চাইলে ফ্রন্টের নেতা ও গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত দেশ রূপান্তরকে বলেন, সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হতে হলে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলের হয়ে নির্বাচন করতে হয়। অথবা স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে হয়। সুলতান মনসুর গণফোরামের হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। এখন তাকে দল থেকে বহিষ্কার করায় তার সদস্য পদ থাকতে পারে না।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত