শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ফুটবলে জয় মোহামেডানের ক্রিকেটে আবাহনীর

আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ০১:০২ এএম

কিক অফের ২৬ সেকেন্ডের মাথায় মোহামেডানকে হতভম্ব করে দিয়ে এগিয়ে গেল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। এই ১-০ গোলের লিড নিয়ে ৭০ মিনিট পার করে দিল তারা। তবে এরপরই প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে ফেডারেশন কাপের সেমিফাইনালে উঠল গতবারের চ্যাম্পিয়ন মোহামেডান। গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার প্রথম কোয়ার্টার-ফাইনালে মোহামেডানের জয় পয়েছে ২-১ গোলে। শিরোপাধারীদের দুই গোলদাতা মোজাফ্ফর মোজাফ্ফরভ ও জাফর ইকবাল।

প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালের কিক অফের পর বল ঘুরছিল দলটির খেলোয়াড়দের পায়ে। মাঝমাঠ থেকে মনির আলম আচমকাই লম্বা ক্রস বাড়ালেন বক্সে, সেকু সিল্লাহর হেডে বল লাফিয়ে ওঠা গোলরক্ষক সুজন হোসেনকে বোকা বানিয়ে খুঁজে নেয় জাল।

পাল্টা জবাব দেওয়ার সুযোগ মোহামেডানের দুয়ারে কড়া নাড়ে পঞ্চম মিনিটেই। আরিফ হোসেনের কাটব্যাকে বল ছয় গজ বক্সে পেয়েও যান এমানুয়েল সানডে, কিন্তু নাইজেরিয়ান এই ফরোয়ার্ড গোলকিপার মিতুল মারমার গায়ে মেরে বসেন।

সপ্তম মিনিটে বক্সের ঠিক ওপর থেকে মোজাফ্ফরভের নিচু ফ্রি কিক রক্ষণ দেয়ালে লেগে প্রতিহত হয়। প্রথমার্ধের বাকিটা সময় শেখ রাসেলের রক্ষণে বারবার ভীতি ছড়াতে থাকে মোহামেডান, কিন্তু মিতুলকে ভড়কাতে পারেনি তারা। ২৩ মিনিটে সানডের কাটব্যাকে সুলেমান দিয়াবাতের শট গ্লাভসের টোকায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে কোনোমতে বের করে দেন মিতুল। কর্নারে প্রথম দফায় ফিস্ট করে ক্লিয়ার করার পর কামরুল ইসলামের দুর্বল শটও আটকান তিনি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে মোহামেডানের আক্রমণে চেনা আগ্রাসনের ছাপ ছিল না তেমন একটা। তবে লেগে থাকার ফল ৭০ মিনিটে পায় তারা। বক্সের ভেতর থেকে দিয়াবাতের জন্য শট নেওয়া কঠিন ছিল। মালির এই ফরোয়ার্ড তাই বল বাড়ান বক্সের বাইরে থাকা মোজাফ্ফরভের উদ্দেশে। উজবেকিস্তানের এই মিডফিল্ডারের বুলেট গতির শট মিতুলের প্রতিরোধের দেয়াল গুঁড়িয়ে জালে জড়ায়।

এরপর খেলা আবারও চলতে শুরু করে ঢিমেতালে। সম্ভাব্য ড্রয়ের দিকে ছুটকে থাকা ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে ফেরে রোমাঞ্চ। ঝটিকা আক্রমণে গোল তুলে নেয় মোহামেডান। মোজাফ্ফরভের পাস ধরে আরিফ আড়াআড়ি ক্রস বাড়ান বক্সে। প্রথম স্পর্শে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে জাফর শট নেন, কিন্তু সামনে থাকা দানি আতান্দা প্রতিহত করেন। ফিরতি বল পেয়ে আর ভুল করেননি জাফর। দেখেশুনে ঠাণ্ডা মাথায় লক্ষ্যভেদ করেন দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামা এই ফরোয়ার্ড।

শেখ জামাল-বাংলাদেশ পুলিশ তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল (২৩ এপ্রিল) জয়ীর সঙ্গে সেমিফাইনাল খেলবে মোহামেডান।

আবাহনীর টানা আট

ক্রীড়া প্রতিবেদক

পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুদলের ম্যাচ। তাও আবার আবাহনী বনাম মোহামেডান। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর জমজমাট লড়াই দেখার আশা করায় ভুল কিছু ছিল না। কিন্তু ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে সেই লড়াই জমেনি মোটেই। একতরফা ম্যাচে মোহামেডানকে ৮ উইকেটে হারিয়ে আট ম্যাচে অষ্টম জয় প্রথম দল হিসেবে সুপার লিগ খেলা নিশ্চিত করেছে আবাহনী।

টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া আবাহনী প্রথম ৬ ওভারেই ২১ রানের মধ্যে মোহামেডানের প্রথম ৩ উইকেট তুলে নেয়। এই ৩ উইকেটের মধ্যে ছিল টানা পাঁচ ম্যাচে ফিফটি করা মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনের উইকেটও। তাকে বোল্ড করে দেন জাতীয় দলের পেসার তানজিম হাসান সাকিব। এরপরও যে রানটা ১৯০ হলো, তাতে বড় অবদান মাহমুদউল্লাহর। ৮৩ বলে ৩ ছক্কায় করেছেন ৫৪ রান। দলকে ১৩০ রানে রেখে সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মাহমুদউল্লাহ। এরপর আরিফুল হক (৫৪ বলে ৩৩) ও আবু হায়দারের (১৫ বলে ২২) ১৯০ রান এনে দেয় মোহামেডানকে।

রান তাড়ায় আবাহনী ১৬ রানে হারায় আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান এনামুল হক বিজয়কে। এবার মাত্র ১২ রান করেন তিনি। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ১০৬ রান যোগ করে ম্যাচ থেকে মোহামেডানকে ছিটকে ফেলেন নাঈম শেখ ও জাকের আলী। ওপেনার নাঈম ৬২ বলে ৬৩ রান করে ফিরে গেলেও জাকের আলী ৯০ বলে ৭৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ৬টি ছক্কা মেরেছেন জাতীয় দলের ব্যাটসম্যান। নাঈম মেরেছেন ৩টি। ৩টি ছক্কা মেরেছেন নাঈমের বিদায়ের পর উইকেটে আসা আফিফ হোসেনও। ৩৫তম ওভারে শেষ দুই বলে আসিফ হাসানকে টানা দুই ছক্কা মেরে খেলা শেষ করা আফিফ ৩৮ বলে ৩৯ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি।

এই জয়ে ৮ খেলায় আবাহনীর সংগ্রহ ১৬ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে মোহামেডানের সংগ্রহ ১২। ৭ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট পাওয়া প্রাইম ব্যাংক, শেখ জামাল ও লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ আজ খেলবে। কাল ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় সৃষ্ট যানজটের কারণে বিকেএসপিতে পৌঁছাতে না পারায় ম্যাচ দুটি কাল হতে পারেনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

মোহামেডান : ৫০ ওভারে ১৯০/৯ (মাহমুদউল্লাহ ৫৪, আরিফুল ৩৩; তানজিম ৩/৩১, তাসকিন ২/৫৮)। আবাহনী : ৩৫ ওভারে ১৯৫/২ (জাকের ৭৮*, নাঈম ৬৩, আফিফ ৩৯*।

ফল : আবাহনী ৮ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : জাকের আলী।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত