সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মসজিদে হারামে মুসল্লিদের সেবায় রোবট

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৩ এএম

ইসলামের সবচেয়ে পবিত্রতম স্থান মক্কার মসজিদে হারাম। প্রতি বছর হজ ও ওমরাহ করার জন্য পৃথিবীর অসংখ্য মুসলমান আগমন করেন মক্কায়। এছাড়াও রমজান মাসে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মুসলমান মক্কায় আসেন ওমরাহ পালন এবং ইতিকাফে অংশগ্রহণ করার জন্য। এই বিশাল সংখ্যক হজ-ওমরাহ যাত্রী ও মুসল্লিরা যেন নির্বিঘ্নে যাবতীয় ইবাদত-বন্দেগি করতে পারেন এবং যেকোনো সমস্যার দ্রুত সমাধান করতে পারেন সেজন্য সৌদি সরকারকে যথেষ্ট লোকবলের মাধ্যমে তাদের পরিষেবা নিশ্চিত করতে হয়।

মসজিদে হারামে আগত মুসল্লিদের পরিষেবাকে আরও উন্নত করতে এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহারের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে সৌদি সরকার চলতি রমজান মাসে নির্দেশিকা রোবট চালু করেছে। রোবটগুলো মসজিদে হারামে ইবাদত-বন্দেগি, আচার-অনুষ্ঠান সম্পাদন এবং বিভিন্ন ভাষায় শরিয়তের যেকোনো মাসয়ালার সমাধানে মুসল্লিদের সহযোগিতা করে।

গালফ নিউজের সূত্রে জানা যায়, মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববির ধর্ম বিষয়ক প্রেসিডেন্সির প্রধান আবদুর রহমান আস সুদাইস বলেছেন, সৌদি সরকার আধুনিক ইসলাম প্রচারের জন্য উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের প্রতি জোর দিয়েছে। ডিজিটাল ইলেকট্রনিক অ্যাপস এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে মুসল্লিদের কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করার জন্য এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

রোবটটি আরবি, ইংলিশ, ফরাসি, রাশিয়ান, ফার্সি, তুর্কি, উর্দু, চায়না ও বাংলাসহ মোট ১১টি ভাষায় মুসল্লিদের যেকোনো প্রশ্নের সমাধান দেয়। রোবটটিতে ২১ ইঞ্চি টাচ স্ক্রিনের মনিটর রয়েছে।

১১ মার্চ শুরু হয় রমজানের রোজা। প্রতি বছর রমজান মাসে সারা বিশ্ব থেকে অসংখ্য মুসলমান আগমন করেন ইসলামের সবচেয়ে পবিত্রতম স্থান মক্কায়। তাদের প্রায় সবারই উদ্দেশ্য থাকে রমজানে ওমরাহ পালন করা এবং রমজানের শেষ দশ দিন মক্কার মসজিদে হারামে ইতিকাফ করা। এই কারণে মসজিদে হারামে প্রতি বছর রমজানে বিপুল সংখ্যক মুসলমানের আগমন ঘটে।

প্রতি বছরের মতো এ বছরও রমজান শুরু হওয়ার পর থেকেই সৌদির অভ্যন্তরীণ ও বাইরে থেকে লাখ লাখ মানুষ ওমরাহ পালন ও নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে হারামে আগমন করছেন। এখানে আগত মুসল্লিদের পরিষেবা নিশ্চিত এবং স্বচ্ছন্দে ইবাদত-বন্দেগি সম্পাদন করার জন্যই এমন ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত