বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রাজনীতিকদের ক্লান্তিহীন ঈদ

আপডেট : ১১ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২৯ পিএম

ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলার গুতুমা গ্রামে নিজ বাড়ির ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৮ টায় ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেন জেলার ১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আলাউদ্দিন আহমেদ (নাসিম) চৌধুরী। আওয়ামী লীগের এ এমপি জামাত শেষে ঘরে ফেরার সুযোগ পাননি।

দেখা গেছে, পারিবারিক সৌজন্যতা শেষ না করেই রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের সময় দেওয়া শুরু করেছেন। অসংখ্য নেতাকর্মীর সঙ্গে শুরু করেন ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়। অসংখ্য নেতাকর্মীর পদচারণায় জমজমাট হয়ে উঠে তার বাড়ির উঠান। জনপ্রতিনিধিসহ দলের পদদারী নেতারা আসছেন, শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে বেরিয়ে যাচ্ছেন। এত ভিড়ের মধ্যেও খোঁজ নেওয়া, নানা বিষয়ে আলোচনা করা ও পরামর্শ দেওয়া নেওয়াও চলছে। এর মধ্যে অনেকে রয়েছেন আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। 

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী দেশ রূপান্তরকে বলেন, নেতাকর্মীদের সঙ্গে এভাবে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে পেরে আমি আনন্দিত।

সকাল সাড়ে ৯ টায় চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার বারদৌনা এলাকায় নিজ বাড়ির ঈদগাহে নামাজ আদায় করেন, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম। 

বাবা-মায়ের কবর জিয়ারত শেষে করে বাড়িতে বসে নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় শুরু করেন এই নেতা। অসংখ্য নেতাকর্মীর সঙ্গে কুশল বিনিময় করতে গিয়ে পরিবার, সন্তান-স্বজন কাউকে সময় দেওয়ার সুযোগ হয়নি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুলের।

মেহাম্মদ আমিনুল ইসলাম দেশ রূপান্তরকে বলেন, আজকে তো আনন্দ ভাগাভাগি করার দিন। কর্মীদের সঙ্গে সময় দিতে পারলে প্রত্যেক নেতারই ভালো লাগে। আমার কোনো ক্লান্তি নেই। 

আমিনুল ও নাসিম চৌধুরীর মতই সারা দশের বিভিন্ন জেলা উপজেলায় রাজনীতিকরা ক্লান্তিহীন ঈদ উৎযাপন করেছেন। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি), বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধিরা সর্বস্তরের জনসাধারণের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে ব্যস্ত সময় পার করেছেন উল্লেখিত দুই নেতার মতোই। 

কুষ্টিয়ার সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী-মধুখালীর সংসদ সদস্য ও দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী আবদুর রহমান, মোশতাক আহমেদ রুহী ও গাইবান্ধার সাঁঘাটা-ফুলছড়ি আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ হাসান রিপনের মতো আরও অসংখ্য আওয়ামী লীগ নেতা ও সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরা। 

ঈদের আনন্দ ভাগাভাগিতেও উঠে এসেছে আসন্ন উপজেলা নির্বাচন। 

এ প্রসঙ্গে মাহাবুবউল আলম হানিফ দেশ রূপান্তরকে আলেন, ঈদে কর্মীদের পাশে নেতারা উপস্থিত থাকলে কর্মীরা সীমাহীন আনন্দ উপভোগ করেন। নেতা হিসেবে এটুকু আমাদের কর্তব্যের মধ্যেই পড়ে। তবে হানিফ ভিন্নভাবে অন্য একটি দিক তুলে ধরে বলেন, একটু খারাপ লাগে নেতারা এলাকায় থাকলে খুব কম কর্মীই পরিবারকে সময় দিতে পারেন। তারা নেতাকে নিয়েই ব্যস্ত থাকেন। 
 
স্থানীয় পর্যায়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আসন্ন উপজেলা নির্বাচন। এই নির্বাচন আওয়ামী লীগ উন্মুক্ত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেও স্থানীয় নেতারা জেলা-উপজেলার প্রভাবশালী নেতা ও এমপিদের ইশারা আদায় করতে সচেষ্ট থাকেন। এমপি ও নেতাদের বাড়িতে গিয়ে ইশারা আদায় করার তৎপরতা অব্যাহত রাখেন। আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা, এমপি, মন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় নেতারাও অনেকটা চাপে পড়ে কাউকে কাউকে কৌশলী সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিচ্ছেন। এ অবস্থায় মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেকেই নেতাদের বাড়ি থেকে হাসিমুখে বের হচ্ছেন, আবার কেউ মন খারাপ করে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত