শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইরানে পাল্টা হামলা: বিরোধে জড়াল ইসরায়েলের যুদ্ধ মন্ত্রিসভা

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:০৯ পিএম

ইরানের ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর পাল্টা হামলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসেছিল ইসরায়েলের যুদ্ধ মন্ত্রিসভা। তবে বৈঠকে ইরানে হামলা চালানোর বিষয়ে একমত হলেও এই হামলার মাত্রা ও সময় নিয়ে মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে।

ইসরায়েলের গণমাধ্যম বলছে, শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে ইসরায়েলে ইরানের নজিরবিহীন হামলার পর তেল আবিবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দপ্তরে যুদ্ধ মন্ত্রিসভার বৈঠক হয়। রবিবারের (১৪ এপ্রিল) এ বৈঠকে সদস্যদের মধ্যে একটি বিষয়ে মতবিরোধ দেখা দেয়।

ইসরায়েলের চ্যানেল-১২ এক প্রতিবেদনে বলেছে, ইরানকে হামলার জবাব দেয়ার বিষয়ে সবাই একমত। তবে এই হামলার সময় এবং মাত্রা নিয়ে মতবিরোধ তৈরি হয়েছে।

এর আগে রবিবার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মধ্যে ফোনালাপের পর যুদ্ধ মন্ত্রিসভার সদস্য বেনি গ্যান্টজ এবং গাদি আইসেনকোট ইরানের হামলার তাৎক্ষণিক জবাব দেয়ার প্রস্তাব দেন।

কিন্তু প্রস্তাবটি শেষ মুহূর্তে বাতিল করা হয়। ইসরায়েলের সম্প্রচারমাধ্যম কেএএন উল্লেখ করেছে, যুদ্ধ মন্ত্রিসভার মধ্যে কেউ কেউ মনে করেন ইরানের হামলার প্রতিক্রিয়া হওয়া উচিত ‘চোখের বিনিময়ে চোখ’।  অন্যদিকে কেউ কেউ মনে করেন, এই হামলার জবাব হবে সুপরিকল্পিত ও গোছানো।

ইরানের হামলার জবাবে ইসরায়েল কী করবে সে বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে নেতানিয়াহু, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট এবং গ্যান্টজকে অনুমোদন দিয়েছিল দেশটির নিরাপত্তা পরিষদ। গ্যান্টজ এক টেলিভিশন বিবৃতিতে বলেছেন, সময় হলে ‘আমরা ইরানকে উপযুক্ত জবাব দেব।’
 
শনিবার রাতভর ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতায় সেই হামলার ৯৯ ভাগ প্রতিহত করার দাবি করেছে ইসরায়েল। এর আগে গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানি দূতাবাসে ইসরায়েলের হামলায় দুই শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তাসহ সাতজন নিহত হওয়ার পর প্রতিশোধমূলক হামলা চালানোর ঘোষণা দেয় তেহরান এবং তা বাস্তবায়ন করে।

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত