বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বগুড়ায় ‘তন্ত্রমন্ত্রের পাতা খেলা’ দেখতে মানুষের ভিড়

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০৬ পিএম

তন্ত্রমন্ত্র দিয়ে পাতাকে টানছেন তান্ত্রিকরা। পাতা ছুটে চলেছে একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। বিভিন্ন অঙ্গ ভঙ্গিতে তান্ত্রিকরা পাতাকে মন্ত্র দিয়ে বান মেরে আটকানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সোমবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে এমন পাতা খেলা দেখতে মানুষের ঢল নামে  বগুড়া শহরের এডওয়ার্ড পৌর পার্কে। এ সময় উপস্থিত দর্শনার্থীদের তালিতে মুখরিত হয়ে ওঠে পাতাখেলা প্রাঙ্গন। 

জানা গেছে, বগুড়ায় বৈশাখী মেলা উপলক্ষে তন্ত্রমন্ত্রের পাতা খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এ পাতা খেলা দেখতে দূর-দূরান্ত মানুষ ছুটে আসেন। বৃদ্ধ থেকে শিশু সববয়সী মানুষেরা বগুড়া শহরের এডওয়ার্ড পৌর পার্কে ভিড় জমান। এ বছরের পাতা খেলার মূল আকর্ষণ পাতা হয়েছিলেন গাবতলী উপজেলার খুপি গ্রামের রিকশাচালক মাসুদ প্রামানিক। ঘণ্টাব্যাপী চলা এ পাতা খেলায় অংশ নিয়েছিল তান্ত্রিকদের ৬টি দল। বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার বনানী এলাকা মহররম আলী ও তার দল, গাবতলীর পীরগাছা এলাকার আব্দুস সালেক ওরফে কাচ্চু কবিরাজ ও তার দল, গাবতলী উপজেলা হাপানিয়া গ্রামের মোফাজ্জল প্রামানিক ও তার দল, একই উপজেলার হামিদপুর এলাকার ফজলু প্রামানিক ও তার দল, মহিষাবান এলাকার চাঁন মিয়া ও তার দল, সদরের চারমাথা গোদারপাড়া এলাকার গোলাম রব্বানী ওরফে তান্ত্রিক রব্বানী ও তার দল। প্রতিটি দলে ৩  থেকে ৪ জন সদস্য ছিল।

তান্ত্রিকরা জানান, অর্থ বা বিত্তের জন্য নয় বরং মানুষকে আনন্দ দিতে এই খেলায় অংশ নেন। খেলায় পাতাকে সকলে বান মেরে নিজেদের আয়ত্বে নেয়ার চেষ্টা করেন। এতে অনেক ঝুঁকি নিতে হয়। বান মেরে নিজেকেও সুরক্ষিত রাখেন নিজেদের তান্ত্রিকরা।

এবারের খেলায় গাবতলী উপজেলা হাপানিয়া গ্রামের মোফাজ্জল প্রামানিক ও তার দল সর্বোচ্চ চারবার পাতা টেনে নিজের নিয়ন্ত্রণে রেখে খেলায় বিজয়ী হয়। বিজয়ী দলসহ সকল দলকে বগুড়া থিয়েটার আয়োজিত বৈশাখী মেলার পক্ষ থেকে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

পাতা খেলা দেখতে আসা বগুড়া শহরের ফুলবাড়ি এলাকার বৃদ্ধ আব্দুল বারী বলেন, ছোটবেলা থেকে খেলা দেখি। এই খেলা অনেক আনন্দ দেয়। বান মেরে পাতাকে টেনে নেয়া হয়।

বিজয়ী দলের তান্ত্রিক মোফাজ্জল জানান, খেলায় অংশ নিয়ে জয়লাভ করেছি। অনেক আনন্দ লাগছে। আমরা সারাবছর কাজের ফাঁকে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাতা খেলায় অংশ নিয়ে থাকি।

পাতা হওয়া মাসুদ প্রামানিক বলেন, প্রায় ১২ বছর ধরে পাতা হয়ে এই খেলায় অংশ নিচ্ছি। তুলা রাশি হওয়ায় তার উপর বান মারা হয়। তিনি বান কাটার মন্ত্র পড়ে নিজেকে রক্ষা করেন। ঝুঁকি থাকলেও খেলায় অংশ নিয়ে মানুষকে আনন্দ দিতে পারি।

বগুড়া থিয়েটারের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক জাজিউল ইসলাম সবুজ বলেন, গ্রাম বাংলার হারিয়ে যেতে বসা বিভিন্ন খেলা বৈশাখী মেলায় দেখানো হয়। পাতা খেলার আয়োজন এর মধ্যে অন্যতম। পাতা খেলা প্রতি বছর আয়োজন করা হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত