শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

দাওয়াত না পেয়ে বিয়েবাড়িতে ককটেল ফাটালেন ইউপি সদস্য

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫৭ পিএম

শরীয়তপুরের জাজিরায় বিয়ের অনুষ্ঠানে দাওয়াত না দেয়ায় বিয়েবাড়িতে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট চালানোর অভিযোগ উঠেছে এক ইউপি সদস্য ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে।

গত শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে উপজেলার বিলাসপুর ইউনিয়নের চেরাগ আলী বেপারী কান্দি গ্রামের সৈয়দ তাজুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আব্দুর রহমান খাঁ (২২) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল রবিবার (১৪ এপ্রিল) ২১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১০/১৫ জনের বিরুদ্ধে জাজিরা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, চেরাগ আলী বেপারী কান্দি গ্রামের সৈয়দ তাজুল ইসলাম তার চাচাতো বোনের বিয়ে উপলক্ষে পারিবারিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে স্থানীয় ইউপি সদস্য নাসির বেপারীসহ তার লোকজন দাওয়াত দেননি তাজুল ইসলাম। এই ক্ষোভে ওই বিয়েবাড়ির গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে গিয়ে নাসির বেপারী ও তার লোকজন ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে বসতঘর, আসবাবপত্র এবং একটি প্রাইভেট কার ভাঙচুর করে। পরে লুটপাট চালায়। 

ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি, ভাঙচুর ও লুটপাটের তাদের ৪ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এঘটনায় তাজুল ইসলামের ভাই সৈয়দ সাব্বির হোসেন বাদী হয়ে জাজিরা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ক্ষতিগ্রস্ত সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেন, আমার চাচা অসহায় হওয়ায় চাচাতো বোনের বিয়ের অনুষ্ঠানের দায়িত্ব নেই আমি। অনুষ্ঠানটি ছোট পরিসরে করি, গ্রামে কাউকে দাওয়াত করিনি। নাসির বেপারী মেম্বার ও তার লোকজনকে দাওয়াত না দেওয়ায় তারা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে বসতঘর, আসবাবপত্র, গাড়ি ভাঙচুর করে লুটপাট করে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য নাসির বেপারী মোবাইল ফোনে বলেন, ঘটনার সময়ে আমি বাড়িতে ছিলাম না। তবে জেনেছি তাজুল ইসলাম তার চাচাত বোনের বিয়েতে এলাকার কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তিকে দাওয়াত দেয়নি। এ নিয়ে তাদের বোঝানোর চেষ্টাও করেছি। কিন্তু তাজুল ইসলাম উল্টো তাদের উদ্দেশে অকথ্য ভাষায় কথা বলেছেন।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগটি মামলা আকারে আমলে নিয়ে একজন গ্রেপ্তার করেছি। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত