শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে ধর্ষকদের হাতে দিলেন স্বামী

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:২০ পিএম

কুমিল্লায় টাকার জন্য স্ত্রীকে তিন মাদকসেবী ও ধর্ষকের হাতে তুলে দিয়েছেন আবুল খায়ের নামের এক স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লা জেলা বরুড়া উপজেলা শাকপুর গ্রামে। 

গত বুধবার (১৭ এপ্রিল) জেলার বরুড়া উপজেলার শাকপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) সকালে ভুক্তভোগী নারী থানায় এসে অভিযোগ জানালে ৩ ধর্ষককে আটক করে বরুড়া থানা পুলিশ। 

আটককৃতরা হলেন, বরুড়া উপজেলার শাকপুর এলাকার মাদকসেবী নুরুল ইসলাম নুরু, একই গ্রামের মনির হোসেন এবং আদ্রা ইউনিয়নের নরিন্দ্রপুর গ্রামের মোল্লা বাড়ির মাহিন উদ্দিন। অন্যদিকে, ভুক্তভোগীর স্বামী আবুল খায়েরকে আটকের জন্য চেষ্টা চলছে। 

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন ভুক্তভোগী ওই নারীর বাবা মো. সিরাজ মিয়া। তার বাড়ি কুমিল্লা জেলা মুরাদনগর উপজেলায়। 
 
মামলা সূত্রে জানা যায়, গৃহবধূর স্বামী আবুল খায়ের মাদকসেবী। টাকা না থাকায় একই গ্রামের মাদককারবারী  নুরুল ইসলাম নুরুর (৩০) সাথে খারাপ কাজের জন্য চাপ দেয় স্বামী আবুল খায়ের। গত ১৬ এপ্রিল আবুল খায়ের এর বসত ঘরে নুরুল ইসলাম নুরু জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ওই গৃহবধূকে। একই রাতে আনুমানিক ২টার দিকে নুরুল ইসলাম নুরু তার বসত ঘরে নিয়ে পুনরায় ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে । 

১৭ এপ্রিল একই উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের নরিন্দ্রপুর গ্রামের ধান ক্ষেতের সেচ ঘরে (মেশিন ঘরে)  নিয়ে রাতে নুরুল ইসলাম নুরু, শাকপুর গ্রামের মনির হোসেন (২৫) ও আদ্রা ইউনিয়নের নরিন্দ্রপুর গ্রামের মাহিন উদ্দিন (৩৮)  তিনজন পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষ করে সিএনজিতে করে ভুক্তভোগী সুমাইয়াকে শাকপুর নতুন বাজারে রেখে পালিয়ে যায়।

বাদীর ছোট ভাই মো. আলাউদ্দিন মোবাইলে জানান, সকল আসামি মাদকসেবী, আমার ভাতিজিকে সব সময় টাকার জন্য নির্যাতন করতো তার স্বামী আবুল খায়ের। সুমাইয়া (ভাতিজি) টাকা দিতে না পারায় মাদকসেবীদের হাতে টাকার জন্য তুলে দেয় তাকে। 

এ বিষয়ে বরুড়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো. রিয়াজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি। তাদের আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। স্বামীকে গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া চলছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত