শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘জোর যার মুল্লুক তার’ কায়দায় জমি দখলের চেষ্টা, প্রাণনাশের হুমকি

আপডেট : ১৬ মে ২০২৪, ০৮:৪০ পিএম

‘জোর যার মুল্লুক তার’ নীতির মতোই কায়দা করে আমার ক্রয়কৃত জমি জোরপূর্বক দীর্ঘদিন যাবৎ দখলের চেষ্টা করে এখন আমাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এরা সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই— এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ভুক্তভোগী মো. মাহবুবুল আলম। তিনি পেশায় একজন নিকাহ রেজিস্ট্রারকারী (কাজী)।

গত মঙ্গলবার মাহবুবুল আলম নিজের ক্রয়কৃত জমিতে গেলে বিপরীত পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসহ তার ওপর চড়াও হন। এ সময় আত্মরক্ষার্থে তিনি চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এসে ঘটনাস্থলে জড়ো হন। এ সময় উপস্থিত লোকজনের সামনেই তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় প্রতিপক্ষরা।

ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের উচাখিলা গ্রামে। এদিকে ঘটনার দিন বিকেলেই ভুক্তভোগী মো. মাহবুবুল আলম বাদী হয়ে মো. রফিকুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের নামে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অন্য অভিযুক্তরা হলেন ওই গ্রামের মো. আজাদ (৪৫), মো. আ. রাশিদ (৫২), মো. সুলমান মিয়া (৩৫), মো. দেলোয়ার হোসেন (২৫),  মো. সালমান মিয়া (২৩), মো. আতিকুল ইসলাম (২২), মো. আহাম্মদ আলী (৬২), মো. মোর্শেদ মিয়া (৫৬), মো. ফাহিম মিয়া (৩০)। লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম।

মাহবুবুল আলম আরও বলেন, আমার কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে উচাখিলা মৌজার হাল দাগ ২৬৯ (সাবেক দাগ-১২৭৭০) দাগে সাড়ে ২৭ শতাংশ জমি কিনি। জমি কেনার পর প্রতিপক্ষরা জোরপূর্বক দখল করে রাখে। গত মঙ্গলবার আমি জমিতে গেলে তাদের সহযোগী লোকজনদের নিয়ে আমার ওপর আক্রমণ করতে এসে আামকে হত্যার হুমকি দেয়। তারা খুব প্রভাবশালী, গুন্ডা ও দাঙ্গাবাজ প্রকৃতির লোক। এমতাবস্থায় আমার জীবনের ঝুঁকি রয়েছে। তাই আমি আমার কষ্টার্জিত জমি ফেরত ও বিবাদীদের শাস্তি দাবি করছি।

এ প্রসঙ্গে অভিযুক্তদের একজন আ. রাশিদ বলেন, এ ধরনের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

এ বিষয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মাজেদুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত