বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নাঙ্গলকোটে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

আপডেট : ২৩ মে ২০২৪, ০৮:০৫ পিএম

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজুকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন কুমিল্লার আদালত। কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক রোজিনা খান এ রায় দেন। রায় ঘোষণাকালে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতের কাঠগড়ায় অনুপস্থিত ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বেলা ১২টায় এ মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন আদালতের বিচারক।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাটিষক গ্রামের নুরুন্নবী ওরফে নুর আলমের ছেলে। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্র পক্ষের কৌশলী অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মো. আমিনুল ইসলাম ও অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আমরা আশা করছি উচ্চ আদালত এ রায় বহাল রেখে দ্রুত বাস্তবায়ন করবেন।

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ঘটনার বিষয়ে জানান, কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার পূর্ব দৈয়ারা গ্রামের আব্দুল আজিজের কন্যা খালেদা আক্তারের সঙ্গে ২০১৩ সালে কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শাটিষক গ্রামের নুরুন্নবী ওরফে নুর আলমের পুত্র মোজাম্মেল হোসেন রাজুর বিয়ে হয়। বিয়ের বছর দুয়েক পরেই বেকার হয়ে পড়েন রাজু। এ নিয়ে সংসারে প্রায় কলহ চলত। ২০১৫ সালে তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। বেকার স্বামীর সংসারে কলহ আরো বাড়তে থাকে। ২০১৮ সালের ২ নভেম্বর মোজাম্মেল হোসেন রাজু তার শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে আসেন। এরপর রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে স্বামী-স্ত্রী ও শিশু সন্তান ঘুমিয়ে পড়েন।

সকালে স্ত্রী খালেদা গোসল শেষে তার স্বামীকে কাপড় ধুয়ে দেওয়ার জন্য বললে এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে স্বামী মোজাম্মেল হোসেন রাজু তার স্ত্রী খালেদাকে গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ বাড়ির পুকুর ঘাটে ফেলে পালিয়ে চলে আসেন।

এ ঘটনায় নিহত খালেদার ভাই মোবারক হোসেন নাঙ্গলকোট থানায় মোজাম্মেল হোসেন রাজুর বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর পুলিশ রাজুকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করলে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। পরবর্তীতে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানি শেষে আজ বৃহস্পতিবার আদালত আসামিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত