বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

তদন্তাধীন মামলায় গণমাধ্যমে বক্তব্য না দিতে আইনি নোটিশ 

আপডেট : ২৯ মে ২০২৪, ১১:৫৪ এএম

তদন্তাধীন মামলায় গণমাধ্যমে বক্তব্য না দিতে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আজ বুধবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক ও ডিএমপি কমিশনারকে এই নোটিশ পাঠান। 

নোটিশে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলা হয়েছে, তিনি ভারতের পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসার উদ্দেশ্যে গিয়ে নিখোঁজ হন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী তিনি নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। আজ অবধি তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এই বিষয়ে বাংলাদেশ ও ভারত সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত পরিচালনা করছে। সময়ে সময়ে কর্তৃপক্ষ ঘটনার হালনাগাদ তথ্য আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করছে। অতীতেও তদন্তাধীন চাঞ্চল্যকর ঘটনার ক্ষেত্রে একই ধরণের প্রবণতা দেখা গেছে। 

নোটিশে ২০১৯ সালে ‘আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি বনাম রাষ্ট্র’ মামলায় হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের প্রাসঙ্গিক অংশ উল্লেখ করা হয়। যেখানে বলা হয়েছে, আলোচিত অপরাধের তদন্ত চলাকালে বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলাবাহিনী গ্রেপ্তারকৃত অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজির করার পূর্বেই বিভিন্নভাবে গণমাধ্যমের সামনে উপস্থাপন করে ৷ যা অনেক সময় মানবাধিকারের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে অমর্যাদাকর এবং অনুমোদনযোগ্য।

রায়ে আরও বলা হয়, আমাদের সকলকে স্মরণ রাখতে হবে যে, যতক্ষণ পর্যন্ত আদালতে একজন অভিযুক্ত বিচার প্রক্রিয়া শেষে সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে দোষী সাব্যস্ত না হচ্ছেন ততক্ষণ পর্যন্ত চূড়ান্তভাবে বলা যাবে না যে তিনি প্রকৃত অপরাধী বা তাঁর দ্বারাই অপরাধটি সংঘটিত হয়েছে। গণমাধ্যমের সামনে গ্রেপ্তারকৃত কোনো ব্যক্তিকে এমনভাবে উপস্থাপন করা সংগত নয় যে, তাঁর মর্যাদা ও সম্মানহানি হয়। পুলিশ রিপোর্ট দাখিলের পূর্বে গণমাধ্যমে গ্রেপ্তারকৃত কোনো ব্যক্তি বা মামলার তদন্ত সম্পর্কে এমন কোনো বক্তব্য উপস্থাপন সমীচীন নয়, যা তদন্তের নিরপেক্ষতা নিয়ে জনমনে বিতর্ক বা প্রশ্ন সৃষ্টি করতে পারে। 

উচ্চ আদালতের রায়ের আলোকে আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডসহ সকল তদন্তাধীন মামলার ক্ষেত্রে নির্দেশনা মেনে চলার জন্য নোটিশে সবাইকে অনুরোধ করা হয়। অন্যথায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হয়ে যথাযথ আইনি প্রতিকার চাওয়া হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত