সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অস্ত্র জমা দিয়ে আত্মসমর্পণ করলেন ৫০ জলদস্যু

আপডেট : ৩০ মে ২০২৪, ০৮:৩২ পিএম

চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের উপকূলীয় অঞ্চলের ১২টি বাহিনীর মোট ৫০ জন জলদস্যু র‌্যাব-৭ এর তত্ত্বাবধানে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আত্মসমর্পণ করছে। বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরে নগরের পতেঙ্গা র‌্যাব-৭ এর এলিট হলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের কাছে অস্ত্র জমা দিয়ে তারা আত্মসমর্পণ করেন।

র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) মো. শরীফ-উল-আলম জানান, শর্তহীনভাবে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার উপকূলীয় অঞ্চলের ১২টি বাহিনীর মোট ৫০ জন জলদস্যু আত্মসমর্পণ করেন।

তিনি আরও জানান, জলদস্যুরা ৩৫টি একনলা বন্দুক, ১৮টি এসবিবিএল, ১৭টি ওয়ান শুটার গান, ১টি দুইনলা বন্দুক, ১টি পিস্তল, ১টি রিভলভার, ৩টি বিদেশি পিস্তল, ১টি এসএমজি ও ২টি এয়ারগানসহ মোট ৯০টি অস্ত্র ও চারটি ওয়াকি-টকি জমা দিয়েছে। এ ছাড়া গুলি ও কার্তুজ জমা দিয়েছে ২৮৩ রাউন্ড।

মধ্যস্থতাকারী মীর মোহাম্মদ আকরাম হোসাইন বলেন, চট্টগ্রাম উপকূলীয় অঞ্চলের চিহ্নিত অস্ত্রের কারিগর ও কুখ্যাত ১৮টি বাহিনীর ৫০ জন জলদস্যু সদলবলে আত্মসমর্পণ করে। এটি চতুর্থবারের মতো। এবারের ৫০ জনসহ মোট ২১৩ জন জলদস্যু চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার উপকূল থেকে সকরকারের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন।

২০১৮ এবং ২০২০ সালে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের উপকূলীয় অঞ্চলের ৭৭ জন জলদস্যুর সফল আত্মসমর্পণ অন্যান্য জলদস্যুদের মাঝে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। বাঁশখালী, চকরিয়া, পেকুয়া, মহেশখালী ও কুতুবদিয়া অঞ্চলের জলদস্যুরা তাদের দস্যু জীবনের অবসান ঘটিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আশার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত