মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বেনজীরের জব্দ ইকোপার্ক দ্রুত চালু করা হবে

আপডেট : ১১ জুন ২০২৪, ০২:১৪ এএম

পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ এবং তার পরিবারের সদস্যদের মালিকানাধীন জব্দ করা গোপালগঞ্জের সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক। এ সময় গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক কাজী মাহবুবুল আলম জানান, আপাতত বন্ধ থাকা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কটি খুব শিগগিরই আদালতের নির্দেশনা নিয়ে চালু করা হবে। গতকাল সোমবার দুপুরে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের বৈরাগীটোল গ্রামে অবস্থিত পার্কটি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন জেলা প্রশাসক।

পার্ক পরিদর্শন শেষে জেলা প্রশাসক কাজী মাহবুবুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় ঢাকা মহানগর আদালতের স্পেশাল জজের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদ এবং তার পরিবারের মালিকানাধীন সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কে যেসব পুকুর বা জলাশয়, ইকো রিসোর্টসহ যা কিছু আছে, সবকিছুই ক্রোক (জব্দ) করা হয়েছে। ৬ জুন গোপালগঞ্জ দুদকের উপপরিচালক ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ক্রোকের আদেশ জারি করেন। সেই আদেশ অনুযায়ী, কৃষিজমি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য গোপালগঞ্জের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক এবং পুকুর ও জলাশয়গুলোর জন্য জেলা মৎস্য কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাকে (জেলা প্রশাসককে) সার্বিক সহযোগিতার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

কাজী মাহবুবুল আলম আরও বলেন, তারা আনুষ্ঠানিকভাবে পার্কটি দেখতে এসেছেন। যেহেতু তিনি জেলা প্রশাসক হিসেবে পার্কটির সার্বিক সহযোগিতার দায়িত্বে আছেন। আদালত এটা শুধু ক্রোকের আদেশই দেননি, সার্বিক রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দিয়েছে। তাই এখানে ঘুরে কী কী সুযোগ-সুবিধা আছে, সে বিষয়ে ধারণা নিয়েছেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, পার্কে পুকুর আছে, ফলের গাছ আছে, কটেজ আছে এবং বিভিন্ন রাইড আছে। এখন পরিকল্পনা করে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কীভাবে রাজস্ব বৃদ্ধি করা যায়, সেই ব্যবস্থা করা হবে। যাতে রাজস্ব আয় হয়, সেই সঙ্গে মানুষের সুন্দর চিত্তবিনোদনের সুযোগ হয়।

পরিদর্শনের সময় জেলা প্রশাসকের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ফারহানা জাহান উপমা, গোপালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহসিন উদ্দিন, গোপালগঞ্জ দুদক কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. মশিউর রহমান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিজন কুমার নন্দী, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য) সঞ্জয় কুন্ডু প্রমুখ।

গত শনিবার সকাল থেকে গোপালগঞ্জ ও মাদারীপুরের জেলা প্রশাসন সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কের নিয়ন্ত্রণ নেয়। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী এই দুই জেলা প্রশাসকের তত্ত্বাবধানে পার্কের সব কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

২০১৫ থেকে ২০২০ সালে র‌্যাবের মহাপরিচালক এবং ২০২০ থেকে ২০২২ পর্যন্ত আইজিপি থাকাকালে বেনজীর আহমেদ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের বৈরাগীটোল গ্রামে ৬২১ বিঘা (দুর্নীতি দমন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী) জমির ওপর গড়ে তোলেন সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্ক।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত