সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আধিপত্য বিস্তারে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১   

আপডেট : ১৯ জুন ২০২৪, ০৮:৪৬ এএম

সিরাজগঞ্জে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা-নিয়ন্ত্রণ বাঁধের উপর একটি মুদি দোকান দখল, পূর্ব বিরোধ ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে  সানোয়ার ফকির (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে জেলার শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের চর বর্ণিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত সানোয়ার ফকির ওই গ্রামের বক্স ফকিরের ছেলে। তিনি ৫ সন্তানের জনক ছিলেন। খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, এদিন সকালে শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের চর বর্ণিয়া গ্রামের আখের, মতিন, হামিদ গ্রুপের সঙ্গে সায়েম ও মনি গ্রুপের মধ্যে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ শুরু করে।  

এ বিষয়ে সায়েম গ্রুপের প্রধান সায়েম ফকির অভিযোগ করে বলেন, আখের একজন সন্ত্রাসী। সে সহ তার গ্রুপের লোকজন এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি ও মাদক বিক্রি করে আসছিল। এই অনৈতিক কাজে বাঁধা দেওয়ায় তারা মাঝে মধ্যে আমাদের লোকজনের উপরে হামলা চালিয়ে মারধর করে আহত করে। 

যদিও আখের গ্রুপের লোকজন ঘটনার পর গ্রেপ্তার এড়াতে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তার গ্রুপের ৮/১০ জন আহত হয়েছেন। তবে সঠিক কতজন আহত হয়েছে পুলিশ তা জানাতে পারেনি।

এ বিষয়ে গালা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য ইদ্রিস আলী জানান, সকালে সায়েম গ্রুপের ও আখের গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে। খবর আমি ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে।

এই বিষয়ে শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মোঃ আসলাম হোসেন মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টার দিকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পালিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এখন গ্রামে শান্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ই জুন এই দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে ইউনুস আলী নামের এক কিশোর নিহত হয়। এরপর থেকে চর বর্ণিয়া গ্রামের মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়ে বসবাস শুরু করেন। সম্প্রতি তারা বাড়ি ফিরে আসায় আবারও এই হামলা সংঘর্ষ ও হত্যার ঘটনা ঘটল।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত