মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অনুষ্ঠানে সালমান এফ রহমান

প্রধানমন্ত্রী চাচ্ছেন এই মেয়াদেই দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৪৮ পিএম

বর্তমান সরকারের মেয়াদেই দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে প্রধানমন্ত্রী চাচ্ছেন উল্লেখ করে তার বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, বেসরকারি খাতকে প্রাধান্য দিয়ে এ লক্ষ্য অর্জন করতে চাচ্ছেন তিনি। গতকাল ঢাকার ওয়েস্টিন হোটেলে এফবিসিসিআই আয়োজিত গতিশীল প্রবৃদ্ধি অর্জনে বিদ্যুতের সর্বোত্তম ব্যবহার নিয়ে আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, জিডিপির প্রবৃদ্ধি, বিদ্যুৎ পরিস্থিতির উন্নয়ন ও মাথাপিছু আয়সহ অর্থনীতির বিভিন্ন সূচকের যে অগ্রগতি, ১০ বছর আগে তা কল্পনাও করা যেত না। সরকার উদ্যোক্তাদের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টিতে কাজ করছে। বিনিয়োগের আগ্রহ নিয়ে উদ্যোক্তাদেরও এগিয়ে আসতে হবে। বেসরকারি খাতের বিকাশে সরকারি কর্মকর্তাদের মানসিকতার পরিবর্তন দরকার উল্লেখ করে সালমান এফ রহমান বলেন, ‘তাদের মাথায় রাখতে হবে ব্যবসায়ীরা যখন কোনো বিষয় নিয়ে উপরের পর্যায়ে যোগাযোগের চেষ্টা করে, তখন ধরেই নেওয়া যায় যে, তারা নিচের দিকে অসহযোগিতার কারণে ব্যর্থ হয়ে উপরে এসেছে। এই ক্ষেত্রে তাদের সমস্যার সমাধানটাও খুব দ্রুত দিতে হবে।’ নিরবচ্ছিন্নভাবে গ্যাস-বিদ্যুতের সংযোগ পেতে অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে পরামর্শ দেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, কোথাও সুলভ মূল্যে জমি পেলে সেখানে শিল্প স্থাপন করে ফেলা এবং পরে গ্যাস-বিদ্যুতের চাহিদা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সব স্থানে একই হারে একই সুবিধাসহ গ্যাস-বিদ্যুৎ দেওয়া যায় না। তবে নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে গ্যাস-বিদ্যুৎসহ যাবতীয় ইউটিলিটি সুবিধা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে সরকার।

দেশের ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে সরকার যে সবাইকে বিদ্যুৎ দেওয়ার লক্ষ্য স্থির করেছে তা পূরণ হলেও বিদ্যুৎ সেবার মানোন্নয়নের ব্যাপারে ব্যবসায়ীরা আশঙ্কায় আছে। মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ না থাকায় শিল্প উৎপাদন দারুণভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তিনি বলেন, বিদ্যুতের আসা-যাওয়া ও নিম্ন ভোল্টেজ শিল্প উৎপাদন ব্যাহত করে। বছর বছর বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে ব্যবসায়ীরা দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের লাভ-লোকসান হিসাব করতে পারেন না। এই সমস্যাগুলো এখনো দূর করা যায়নি।

তিনি বলেন, প্রাইভেট সেক্টর সংগ্রাম করে সামনে এগোচ্ছে। ব্যবসার সূচকে বাংলাদেশ আফগানিস্তানের চেয়েও পিছিয়ে থাকা খুবই দুঃখজনক। বিদ্যুৎ নিয়ে অনেক সুখবরের মধ্যে এখনো রাজধানীর বাইরের এলাকাগুলোতে লোডশেডিং থেকে গেছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত