রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আলুর বস্তায় প্রথম বিশ্বযুদ্ধের গ্রেনেড

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৫২ পিএম

হংকংয়ের পূর্বাঞ্চলের একটি চিপস কারখানা তাদের কাছে আসা আলুর চালানের মধ্যে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে জার্মান বাহিনীর ব্যবহৃত একটি গ্রেনেড পেয়েছে। ফ্রান্স থেকে হংকংয়ের উদ্দেশে আলুবাহী জাহাজে এই গ্রেনেডটি আসে বলে জানিয়েছে এএফপি।

ক্যালবে চিপস কারখানা থেকে গ্রেনেডটি উদ্ধার করে হংকং পুলিশের বিস্ফোরক নিস্ক্রিয়কারী সংস্থার সদস্যরা। কাদাযুক্ত ওই গ্রেনেডটির আয়তন প্রস্থে তিন ইঞ্চি অর্থাৎ আট সেন্টিমিটার। অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকা ওই গ্রেনেডের বিষ্ফোরণ হওয়ার আর কোনো সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। গত শনিবার সকালে উদ্ধার হওয়া ওই গ্রেনেডটি নিরাপদে ধ্বংস করা হয়েছে।

স্থানীয় পুলিশ পরিদর্শক উইলফ্রেড ওং হো-হন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের হাতে আসা সমস্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, এই হ্যান্ড গ্রেনেডটি ফ্রান্স থেকে জাহাজে করে আসা অন্যান্য আলুর সঙ্গে এখানে এসেছে। উচ্চমাত্রার চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে ওয়াটার ফায়ারিং কৌশলে এটিকে নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।’

দেভ ম্যাক্রি নামের একজন সামরিক ইতিহাসবিদ বলেন, ‘অনুমান করা যাচ্ছে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে গ্রেনেডটি ফেলে রাখা হয়েছিল। তাছাড়া সেনাসদস্যদের কাছ থেকে পড়েও যেতে পারে নয়তো এটি ছোড়া হয়েছিল কিন্তু বিষ্ফোরিত না হয়ে সেখানেই পড়ে ছিল এতদিন।’

বিশ্বযুদ্ধের সময়কার বোমা বা অস্ত্র পাওয়া হংকংয়ে নতুন কিছু নয়। এর আগেও এমন অনেক বোমা পাওয়া গেছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় হংকং ছিল জাপান ও ব্রিটিশ বাহিনীর রণক্ষেত্র। তখন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রবাহিনী ব্যাপক বোমা হামলা চালিয়েছিল হংকংয়ে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত