শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বছরে বেকার বাড়ছে ৮ লাখ : সিপিডি

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:৫২ এএম

কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি না হওয়ায় বছরে প্রায় আট লাখ বেকার বাড়ছে বলে জানিয়েছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)। গতকাল রবিবার রাজধানীর গুলশানে লেকশোর হোটেলে সংস্থাটি আয়োজিত ‘প্রবৃদ্ধি ও অগ্রাধিকার’ বিষয়ক সংলাপে এ তথ্য তুলে ধরা হয়। সেই সঙ্গে সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলোও বাস্তবায়নের তাগিদ দেওয়া হয়।

সিডিপি বলছে, আর্থ-সামাজিক খাতে উন্নয়ন হলেও কর্মসংস্থানবিহীন প্রবৃদ্ধি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হলেও সে তুলনায় কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে না। প্রবৃদ্ধির সুফলও সমানভাবে পৌঁছাচ্ছে না। এই প্রবৃদ্ধি অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনীতিতে সহায়ক নয়।  মূল প্রবন্ধে বলা হয়, বর্তমান সরকারের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বৈষম্যরোধ করা, মানসম্মত শিক্ষা কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি না হওয়ায় বছরে প্রায় আট লাখ বেকার বাড়ছে বলে জানিয়েছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)। গতকাল রবিবার রাজধানীর গুলশানে লেকশোর হোটেলে সংস্থাটি আয়োজিত ‘প্রবৃদ্ধি ও অগ্রাধিকার’ বিষয়ক সংলাপে এ তথ্য তুলে ধরা হয়। সেই সঙ্গে সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলোও বাস্তবায়নের তাগিদ দেওয়া হয়।

সিডিপি বলছে, আর্থ-সামাজিক খাতে উন্নয়ন হলেও কর্মসংস্থানবিহীন প্রবৃদ্ধি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হলেও সে তুলনায় কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে না। প্রবৃদ্ধির সুফলও সমানভাবে পৌঁছাচ্ছে না। এই প্রবৃদ্ধি অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনীতিতে সহায়ক নয়।  মূল প্রবন্ধে বলা হয়, বর্তমান সরকারের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বৈষম্যরোধ করা, মানসম্মত শিক্ষা  নিশ্চিত করা, সবার জন্য মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার নিশ্চয়তা ও স্বাস্থ্য ব্যয় কমিয়ে আনা এবং দারিদ্র্য নিরসনে সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচির সফল বাস্তবায়ন করা মূল চ্যালেঞ্জ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, স্বাস্থ্য খাতে অনেক উন্নতি হয়েছে। হাজার হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা দিচ্ছে। এরপরও মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, দারিদ্র্য আমাদের অন্যতম প্রধান সমস্যা। দারিদ্র্য ও ক্ষুধা সবসময় মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তাই তাড়াহুড়া করতে গিয়ে সমস্যা বাড়ানো যাবে না।

মূল প্রবন্ধে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন বলেন, প্রতিবছর ২১ লাখ কর্মক্ষম মানুষ কর্মের বাজারে প্রবেশ করছে। কিন্তু কর্মসংস্থান হচ্ছে মাত্র ১৩ লাখ। সর্বোচ্চ ধনী ৫ শতাংশের তুলনায় সর্বনিম্ন ৫ শতাংশের আয় বৈষম্য ব্যাপক বেড়েছে। প্রবৃদ্ধির সুবিধা সমবণ্টন না হওয়ায় বৈষম্য চরম আকার ধারণ করেছে। এ বিষয়ে সরকারের নজর দেওয়া প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধি, মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার কমানোসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ সুনাম অর্জন করেছে বাংলাদেশ। তবে মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার অভাব রয়েছে।

সিপিডির চেয়ারম্যান ড. রেহমান সোবহান বলেন, মানসম্মত শিক্ষা এখন অনেক বড় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে। সরকার দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। এটি বাস্তবায়ন করতে হবে। জিডিপির সুফল সমানভাবে সব অংশে পৌঁছাতে হবে।

সংস্থাটির সম্মানীয় ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমানের পরিচালনায় সংলাপে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। আর আলোচক ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি ডা. রশিদ ই মাহবুব। পরে ‘স্টেট অব দ্য বাংলাদেশ ইকোনমিক অ্যান্ড ন্যাশনাল ইলেকশন-২০১৮ পাইরেটস ফর ইলেক্টরাল ডিবেটস’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

নিশ্চিত করা, সবার জন্য মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার নিশ্চয়তা ও স্বাস্থ্য ব্যয় কমিয়ে আনা এবং দারিদ্র্য নিরসনে সামাজিক নিরাপত্তামূলক কর্মসূচির সফল বাস্তবায়ন করা মূল চ্যালেঞ্জ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, স্বাস্থ্য খাতে অনেক উন্নতি হয়েছে। হাজার হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা দিচ্ছে। এরপরও মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, দারিদ্র্য আমাদের অন্যতম প্রধান সমস্যা। দারিদ্র্য ও ক্ষুধা সবসময় মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তাই তাড়াহুড়া করতে গিয়ে সমস্যা বাড়ানো যাবে না।

মূল প্রবন্ধে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন বলেন, প্রতিবছর ২১ লাখ কর্মক্ষম মানুষ কর্মের বাজারে প্রবেশ করছে। কিন্তু কর্মসংস্থান হচ্ছে মাত্র ১৩ লাখ। সর্বোচ্চ ধনী ৫ শতাংশের তুলনায় সর্বনিম্ন ৫ শতাংশের আয় বৈষম্য ব্যাপক বেড়েছে। প্রবৃদ্ধির সুবিধা সমবণ্টন না হওয়ায় বৈষম্য চরম আকার ধারণ করেছে। এ বিষয়ে সরকারের নজর দেওয়া প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, মানুষের গড় আয়ু বৃদ্ধি, মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার কমানোসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ সুনাম অর্জন করেছে বাংলাদেশ। তবে মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার অভাব রয়েছে।

সিপিডির চেয়ারম্যান ড. রেহমান সোবহান বলেন, মানসম্মত শিক্ষা এখন অনেক বড় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে। সরকার দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। এটি বাস্তবায়ন করতে হবে। জিডিপির সুফল সমানভাবে সব অংশে পৌঁছাতে হবে।

সংস্থাটির সম্মানীয় ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমানের পরিচালনায় সংলাপে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। আর আলোচক ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি ডা. রশিদ ই মাহবুব। পরে ‘স্টেট অব দ্য বাংলাদেশ ইকোনমিক অ্যান্ড ন্যাশনাল ইলেকশন-২০১৮ পাইরেটস ফর ইলেক্টরাল ডিবেটস’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত