সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

কিছু ফ্লাইওভার যানজটকে নিচ থেকে উপরে তুলেছে

আপডেট : ০৪ মার্চ ২০১৯, ১২:৩৭ এএম

স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ফ্লাইওভার তৈরিতে যে আমাদের একটুও উপকার হয়নি তা নয়। তবে কিছু ফ্লাইওভার এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে। যেগুলোর মাধ্যমে নিচের ট্রাফিক সমস্যাকে কেবল উপরে তোলা হয়েছে। কোনো উপকার হয়নি।

রবিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) ৫৯তম কনভেনশন উপলক্ষে ‘শহীদ ইঞ্জিনিয়ার স্মারক বক্তৃতা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে এমন কিছু ফ্লাইওভার তৈরি করেছি। এগুলো এত বেশি জায়গা দখল করেছে, এটা তো ট্রাফিক সলিউশন হলো না। কোন ধরনের কৌশল বা পরিকল্পনা থেকে এগুলো করা হয়েছে আমার বোধগম্য নয়।’

তিনি বলেন, ‘ফ্লাইওভার করলাম, এর মাধ্যমে নিচের যানজটকে উপরে তুলে দিলাম, লাভটা কি হলো?’ এটা আমার কাছে মনে হয় একটা নির্বুদ্ধিতা। এগুলো নিয়ে এখন না ভাবার কোনো কারণ নেই।’

শুধু ঢাকা শহরকে কেন্দ্র করে পরিকল্পনা করলে ফলপ্রসূ হবে না দাবি করে মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকার অতিরিক্ত চাপকে কোথাও স্থানান্তর করতে হবে এবং সেটাও পরিকল্পনায় আনতে হবে। তবে আমি মনে করি না স্থানান্তরের জন্য ঢাকার পাশে সেরকম কোনো জায়গা আছে।’

মন্ত্রী বলেন, স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনায় পরিবহনের সমস্যার সমাধান হবে না। এই সমস্যার সমাধানের জন্য ৫০-১০০ বছরের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নেওয়া উচিত।

প্রকৌশলীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, জাতিকে সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য এখানে আমরা যারা আছি, তাদের উপরে আর কেউ নাই।  আমাদের নিজেদের একটা ঐকমত্যে পৌঁছাতে হবে। পরিবহন বা যেকোনো খাতের সব সংস্থাগুলোর শেষ ভরসা হলেন আপনারা প্রকৌশলীরা। আপনাদেরকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকার পরিবহন সমস্যা ও সমাধানের উপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রকৌশলী ড. মো. মিজানুর রহমান। আইইবির সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী মো. কবির আহমেদ ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইইবির সভাপতি ও আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর এবং প্রকৌশলীবৃন্দ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত