মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নারায়ণগঞ্জে জাপানের জন্য অর্থনৈতিক অঞ্চল

আপডেট : ০৪ মার্চ ২০১৯, ০৩:১৫ এএম

বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জাপানের জন্য আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করা হচ্ছে। জমি অধিগ্রহণের পর ভূমি উন্নয়ন ও অবকাঠামো খাতে ২ হাজার ৫৮১ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। এর সিংহভাগই সহজ শর্তের ঋণ হিসেবে দেবে জাপান। আগামীকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্বাহী কমিটির সভায় (একনেক) এ সংক্রান্ত প্রকল্প উপস্থাপন করতে পারে পরিকল্পনা কমিশন। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কমিশন। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্র্তৃপক্ষ (বেজা) জানিয়েছে, সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্যোগের অংশ হিসেবে জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হবে। এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৫৮১ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাপানভিত্তিক সংস্থা জাইকা দেবে ২ হাজার ১২৭ কোটি টাকা। বাকি ৪৫৪ কোটি টাকা সরকারি অর্থায়নে হবে। চলতি বছর থেকে প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে ২০২৩ সালে শেষ হবে। জাপানের এ অর্থ পাওয়া যাবে মাত্র ১ শতাংশ সুদ হারে। পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ৩০ বছরে পরিশোধ করতে পারবে বাংলাদেশ।

এর আগে ৯৯১ কোটি টাকা ব্যয়ে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার ও চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে অর্থনৈতিক   অঞ্চলের জন্য জমি অধিগ্রহণ করা হয়। আড়াইহাজারে ৫০০ একর জায়গা অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এর বাইরে আরও ৫০০ একর জায়গা অধিগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেজা। প্রকল্পের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে ৪৫ জন পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ২২ জন দেশি ও ২৩ জন বিদেশি।

এ প্রসঙ্গে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, ‘জমি অধিগ্রহণের বিষয়টি সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এখন ভূমি উন্নয়ন, এক্সেস রোড নির্মাণ, সংরক্ষণ খাল ও পুকুর নির্মাণ করা, গ্যাস লাইন স্থাপন, পাওয়ার স্টেশন ও সাব-স্টেশন স্থাপন করা হবে। ২০২৩ সাল নাগাদ এর কাজ শেষ হলে দেশে জাপানি কোম্পানির সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে যাবে। ব্যাপক কর্মসংস্থান হবে। বিভিন্ন জাপানি কোম্পানি বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছে। তাদের আগ্রহের কারণেই এটি সম্পন্ন হচ্ছে।’

প্রকল্প প্রস্তাবনার বিষয়ে পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প শক্তি বিভাগের সদস্য শামীমা নার্গিস বলেন, ‘এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে জাপানি বিনিয়োগ বাড়বে। গুরুত্ব বিবেচনায় প্রকল্পটি আগামী একনেকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে।’

এরই মধ্যে জাপানি হোন্ডা মোটর করপোরেশন মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় আবদুল মোনেম অর্থনৈতিক অঞ্চলে ২৫ একর জমিতে কারখানা স্থাপন করেছে, যেটি চলতি বছরেই উৎপাদনে যাওয়ার কথা। কোম্পানিটি বাংলাদেশে মোট ৪ কোটি ৪০ লাখ ইউএস ডলার বা ৩৬৯ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। জাপান টোব্যাকো গত বছর জুনে আকিজ গ্রুপের তামাক ব্যবসা কিনে নেয়। যেখানে বিনিয়োগ করা হয়েছে ১৪৭ কোটি ৬০ লাখ ডলার বা ১২ হাজার ৩৯৮ কোটি টাকা। সামিট করপোরেশনের ২৪ হাজার কোটি টাকার একটি বিদ্যুৎ প্রকল্পে বিনিয়োগ করছে মিতসুবিশি করপোরেশন। জাপানের নিপ্পন স্টিল অ্যান্ড সুমিতমো মেটাল ম্যাকডোনাল্ড স্টিল বিল্ডিং প্রোডাক্টসের সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগে চট্টগ্রামের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ইস্পাত কারখানা স্থাপন করতে চায়। মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ইয়ামাহাও মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে একটি কারখানা স্থাপন করতে আগ্রহী। প্রসঙ্গত, বেজা ২০৩০ সালের মধ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করতে কাজ করছে। এর মধ্যে ৭৯টির স্থান চূড়ান্ত করে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত