মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সিএমএসএমই ঋণ বিতরণের সময় বাড়ল

আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০২০, ০২:১৩ এএম

ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো কুটির, অতিক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের (সিএমএসএমই) জন্য গঠিত প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণে ব্যর্থ হওয়ায় নতুন করে আবারও সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। ব্যাংকগুলো যাতে সুষ্ঠুভাবে ক্ষুদ্রশিল্পের প্রণোদনার ঋণ বিতরণ করতে পারে সেজন্য সময় এক মাস বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গতকাল এ বিষয়ে এক সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে জানানো হয়, সিএমএসএমইর জন্য গঠিত প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণ করা যাবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। সার্কুলারে বলা হয়, কিছু ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ঋণ বিতরণ করতে না পারায় সিএমএসএমই খাতে কাক্সিক্ষত উৎপাদন ও সেবা প্রসার বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ফলে প্রতিষ্ঠানগুলোকে কর্মী বহাল রাখাসহ অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

দেশে করোনা সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষতি মেটাতে চলতি বছরের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সিএমএসএমই খাতের জন্য ওই প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ভর্তুকি সুদে ঋণ বিতরণের উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত অক্টোবরের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত সিএমএসএমই খাতের প্যাকেজ থেকে প্রায় সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে ব্যাংকগুলো। অর্থাৎ বিতরণের হার ৪০ শতাংশেরও কম। অন্যদিকে বড় শিল্প ও সেবা খাতের জন্য গঠিত ৩৩ হাজার কোটি (পরবর্তীতে তা বাড়িয়ে ৪০ হাজার কোটি টাকা করা হয়) টাকার তহবিলের ৮৫ শতাংশ বিতরণে সক্ষম হয়েছে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো।

এ কারণে ক্ষুদ্রশিল্পের ঋণ বিতরণ বাড়াতে গত ২৮ অক্টোবর সিএমএসএমই খাতের ব্যবসা উপ-খাতের জন্য বরাদ্দ বাড়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক। ফলে এখন থেকে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান এ প্যাকেজের মোট বিতরণ করা ঋণের সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ সিএমএসএমই খাতের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ঋণ দিতে পারছে। বাকি ৭০ শতাংশ ঋণ যাবে উৎপাদন ও সেবা খাতের প্রতিষ্ঠানে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত