মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আদালতের বাইরে সমঝোতা করলেন স্কারলেট জোহানসন

আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৯ পিএম

প্রেক্ষাগৃহের পাশাপাশি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ‘ব্ল্যাক উইডো’ রিলিজ নিয়ে ডিজনির বিরুদ্ধে আদালত গিয়েছিলেন স্কারলেট জোহানসন। বেশ কাদা ছোড়াছুড়ির পর বিষয়টি সমঝোতার মাধ্যমে সমাপ্তিতে গড়ালো।

ভ্যারাইটি ডটকম জানায়, সমঝোতার শর্ত প্রকাশ না হলেও অভিযোগের সময় স্টুডিওর কাছ থেকে ৫ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়েছিলেন অভিনেত্রী।

স্কারলেট ও ডিজনি আলাদা আলাদা বিবৃতিতে জানায়, দুই পক্ষই মঙ্গলবার সমঝোতায় পৌঁছেছে। তারা পরস্পরের সঙ্গে কাজ করে গর্বিত বলেও উল্লেখ করে। ভবিষ্যতেও তা চলমান থাকবে।

এর আগে শোনা যায়, মামলার প্রতিক্রিয়ায় ডিজনির ভবিষ্যৎ প্রজেক্ট থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন স্কারলেট জোহানসন। কিন্তু ডিজনি তাদের বিবৃতিতে বলছে, ‘টাওয়ার অব টেরর’সহ একাধিক প্রজেক্টে থাকছেন এ নায়িকা।

অভিযোগে স্কারলেট জানিয়েছিলেন, শুধুমাত্র থিয়েটারে মুক্তির কথা থাকলেও হুট করে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ডিজনি প্লাসকেও যুক্ত করে ফেলে। এর কারণে শুধু প্রেক্ষাগৃহ নয়, বাড়তি আয় থেকে বঞ্চিত হয়েছেন তিনি।

এমন অভিযোগে উল্টো ক্ষেপে যায় ডিজনি। তারা জানায়, মহামারিকালে নায়িকা ২ কোটি ডলার পারিশ্রমিক দিয়েছে তারা। এমন বিবৃতির পর সমালোচিত হয় স্টুডিও কর্তৃপক্ষ। তাদের সমালোচনার একটি বিষয় ছিল, যেকোনো ধরনের অভিযোগ গোপনে সমঝোতার শর্ত ছিল চুক্তিতে। তবে স্কারলেট জানান, তিনি অভিযোগ করলেও আমলে নেওয়া হয়নি।

দেড় বছর ধরে একাধিকবার তারিখ পাল্টে ৯ জুলাই মুক্তি পায় ‘ব্ল্যাক উইডো’। ডিজনি প্লাসে দর্শক ৩০ ডলারের বিনিময়ে সিনেমাটি ভাড়া করার সুযোগ পায়। আর সেখান থেকে আয় হয় সাড়ে ১২ কোটি ডলার। সব মিলিয়ে আয় করে ৩৬.৭ কোটি ডলার। তবে ধারণা করা হয়, শুধু প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিলে এই আয় বাড়তো। কিন্তু ডিজনির গ্রাহক বাড়াতে মহামারির সুযোগটি নিয়েছে প্রযোজক, এ অভিযোগ ছিল স্কারলেটের। এর পরপরই ‘জাঙ্গল ক্রুজ’ ও ‘ক্রুয়েলা’ একই পদ্ধতিতে মুক্তি পায়।

এ দিকে গত বছর থেকে একই পদ্ধতি ছবি মুক্তি দিচ্ছে ওয়ার্নার ব্রস। ২০২১ সালে একই হাইব্রিড মডেল অনুসরণ করবে তারা। তবে অভিনেতাদের লভ্যাংশ থেকে বঞ্চিত না করতে মোটা অঙ্কের পারিশ্রমিকের নীতিও গ্রহণ করে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত