মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইউক্রেন যুদ্ধের শান্তির চাবি চীনের হাতে

আপডেট : ১৬ মে ২০২৪, ১২:৪৮ এএম

ইউক্রেনের সংকটের শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তির জন্য চীনের প্রস্তাবিত পরিকল্পনার প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। এ সংকটের পেছনে কী আছে বেইজিং তা পুরোপুরি বুঝতে পেরেছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। চলতি সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের চীন সফরে যাওয়ার কথা আছে। তার আগে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা সিনহুয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পুতিন এসব কথা বলেন।

গতকাল বুধবার সিনহুয়ায় প্রকাশিত সাক্ষাৎকারটিতে পুতিন বলেছেন, দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা ইউক্রেনের সংকট সমাধানে রাশিয়া সংলাপ ও কথা বলার জন্য তৈরি আছে। চীনের পরিকল্পনা ও গত মাসে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং প্রকাশিত পরবর্তী ‘নীতিগুলো’ সংঘাতের পেছনের কারণগুলো বিবেচনা করেছে।

সাক্ষাৎকারটি ক্রেমলিনের ওয়েবসাইটে রুশ ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে; তাতে পুতিন বলেছেন, ইউক্রেনের সংকট সমাধানে চীনের দৃষ্টিভঙ্গির বিষয়ে আমাদের মূল্যায়ন ইতিবাচক। বেইজিংয়ের ওরা এর মূল কারণগুলো এবং এর বৈশি^ক ভূরাজনৈতিক তাৎপর্য সত্যিকারভাবে বুঝতে পেরেছে। পরে প্রেসিডেন্ট শি জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎসের সঙ্গে আলাপের সময় যে অতিরিক্ত নীতিগুলো নির্ধারণ করেন সেগুলো ‘বাস্তবসম্মত ও গঠনমূলক পদক্ষেপ’ ছিল, এগুলোতে ‘স্নায়ুযুদ্ধকালীন মানসিকতা কাটিয়ে ওঠার প্রয়োজনীয়তার ধারণা বিকশিত হয়েছে বলে মনে করেন পুতিন। এক বছরেরও বেশি সময় আগে বেইজিং ১২ দফার একটি প্রস্তাব পেশ করে ইউক্রেন যুদ্ধ শেষ করার জন্য সাধারণ নীতিগুলো নির্ধারণ করেছিল। ওই সময় রাশিয়া ও ইউক্রেন, উভয়ই এ প্রস্তাব নিয়ে তেমন উৎসাহ দেখায়নি। আর যুক্তরাষ্ট্র বলেছিল, চীন নিজেকে একজন শান্তি স্থাপনকারী হিসেবে উপস্থাপন করছে কিন্তু তাদের ভাষ্যে রাশিয়ার ‘মিথ্যা বর্ণনা’ প্রতিফলিত হয়েছে এবং তারা রাশিয়ার আক্রমণের নিন্দা করতে ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু গত মাসে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এ প্রস্তাবকে ‘আলোচনার জন্য মহান চীনা সভ্যতার প্রস্তাবিত যুক্তিসংগত পরিকল্পনা’ বলে উল্লেখ করেছেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত