বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

যেভাবে নিখোঁজ হন এমপি আনার

আপডেট : ২২ মে ২০২৪, ১২:৪৪ পিএম

চিকিৎসার কথা বলে চলতি মাসের ১১ মে ভারতে যান ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার। ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পরিচিত এক ব্যক্তির বাসায় গিয়ে ওঠেন তিনি। ১৬ মে থেকে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তাঁর। সেদিন থেকে মোবাইল ফোনে বারবার চেষ্টা করলেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি পরিবার। 

জানা গেছে, কলকাতার উত্তর শহরতলী বরাহনগর এলাকার সিঁথিতে গোপাল বিশ্বাস নামের এক বন্ধুর বাড়িতে উঠেছিলেন এমপি আনার।  ১৭ মে গোপাল বিশ্বাসকে ফোন করে আজিমের মেয়ে জানান যে তার বাবার সঙ্গে কিছুতেই তারা যোগাযোগ করতে পারছেন না। পরে গোপাল বিশ্বাস পুলিশের কাছে নিখোঁজ ডায়েরি করেন। গোপাল বিশ্বাস জানিয়েছেন, ১৩ মে তার বাড়ি থেকে বেরিয়ে যে ভাড়া করা গাড়িতে উঠেছিলেন আনার। গাড়ির চালক পুলিশকে জানিয়েছেন, এমপির সঙ্গে একজন বাংলাদেশি নাগরিক ছিলেন। এদের দুজনকে তিনি কলকাতা সংলগ্ন নিউ টাউন এলাকায় ছেড়ে দেন। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

এরপর ১৫ মে সকালে গোপাল বিশ্বাস আজিমের কাছ থেকে একটি হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পান যে তিনি  দিল্লি পৌঁছেছেন এবং তার সঙ্গে ভিআইপিরা আছেন, তাই তাকে যেন ফোন না করা হয়। এর দুদিন পরে, ১৭ মে গোপাল বিশ্বাসকে আজিমের মেয়ে ফোন করে জানান যে তার বাবার সঙ্গে কিছুতেই তারা যোগাযোগ করতে পারছেন না। পরের দিন, ১৮ মে বরাহনগর থানায় যান তিনি।

গোপাল বিশ্বাস বলেন, সেখানে আমাকে সারাদিন বসিয়ে রাখা হয়। পুলিশ আমার বাড়িতে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে নিয়ে আসে। সেসব খতিয়ে দেখে আমার নিখোঁজ ডায়েরি নেওয়া হয়। তারা ওই ভাড়ার গাড়িটির নম্বরও পেয়ে যায়। চালকের সঙ্গে কথা বলেছে। নিশ্চয়ই পুলিশ  খোঁজখবর করছে, আমাকে তো আর সব তথ্য জানাচ্ছে না।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বাংলাদেশের উপ-দূতাবাস যে তথ্য পেয়েছে, তা অনুযায়ী ১৭ মে এমপি আজিমের মোবাইল নম্বরটি কিছুক্ষণের জন্য বিহারে অবস্থান করছিল। আবার এটাও জানতে পেরেছে তারা যে মোবাইল সেট থেকে সিম কার্ডটি আলাদা করে রাখার কারণে সঠিক অবস্থান খুঁজে পাওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত