সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ২৮ মে ২০২৪, ০২:৩৬ এএম

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আবহাওয়া পরিস্থিতি উন্নত হলে ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পরিদর্শনে যাবেন। তিনি দলীয় জনপ্রতিনিধি ও নেতাদের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন পরিদর্শনে যাবেন, তখন দলের নেতাকর্মীরাও যাবেন উল্লেখ করে কাদের বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে যাবে আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় কমিটি।’ তিনি বলেন, ‘খাবার পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নগদ অর্থ প্রদানের জন্য জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

কাদের বলেন, ‘এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলবর্তী এলাকায় জলোচ্ছ্বাস হয়েছে অনেক বেশি, বেড়িবাঁধ ভেঙেছে, ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে, বৈদ্যুতিক লাইন এবং রাস্তাঘাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। উপকূলবর্তী এলাকার জনপ্রতিনিধি ও নেতাদের পাশে থাকার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের অভিজ্ঞতা ও বাংলাদেশের যে বাস্তবতা জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড়, বন্যা এসব দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিএনপির কথায় যদি আমি বলি, একটি বিরোধী রাজনৈতিক দল হিসেবে দায়িত্ব পালনে তারা বারবার ব্যর্থ হয়েছে। তারা সাহায্যের নামে ফটোসেশন করে।’

তিনি বলেন, ‘কক্সবাজারে রোহিঙ্গারা যে স্রোতের মতো এসেছে বাংলাদেশে, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিক সাহায্য করেছেন। তিনি আমাদের সীমান্তকে উন্মুক্ত করে দিয়েছিলেন উদারভাবে, যেটা সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। তখন আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস রোহিঙ্গাদের সাহায্যে পাশে ছিলাম। তখন দেখা গেছে এক বা বড়জোর দুদিন ফটোসেশনের জন্য গিয়েছে।’

বিএনপি কোনো দুর্যোগে মানবিক আবেদনে তারা মানুষের পাশে দাঁড়ায় না দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাদের কাজই হচ্ছে ফটোসেশন করা। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে রোজার মাসেও আমরা সাধারণ মানুষের মধ্যে ইফতার বিতরণ করেছি আর বিএনপি ইফতার পার্টি করেছে। দলটির সঙ্গে আমাদের নীতিগতভাবেই অনেক পার্থক্য আছে। নানা বিষয় নিয়ে তারা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বলে আমার জানা নেই।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, এসএম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, সুজিত রায় নন্দী, প্রচার ও প্রকাশনাবিষয়ক আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ-বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত