শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মমিনুলের পর তাইজুল-নাঈমে স্বস্তি

আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:০১ পিএম

মমিনুল হকের দারুণ ব্যাটিংয়ে ভালোভাবেই এগোচ্ছিল বাংলাদেশ। হঠাৎ নামে ধস। ৩৭ রানে নেই পাঁচজন! থেমে যাওয়ার অপেক্ষায় বাংলাদেশের রানের চাকা। এমন অবস্থায় নবম উইকেট জুটিতে হিসাব পাল্টে দিলেন তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসান। তাদের দৃঢ়তায় তিনশো রানের গণ্ডি পার হওয়ার পাশাপাশি অনেকটা স্বস্তি নিয়ে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন শেষ করে বাংলাদেশ।

নগরীর জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার দিন শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৩১৫। তাইজুল ৩২ ও নাঈম ২৪ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। বিসিবি একাদশের হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে দাপট দেখানো সৌম্য সরকার মূল লড়াইয়ের শুরুতেই দিলেন ব্যর্থতার পরিচয়। ১৩ মাস পর টেস্ট দলে ফেরা এই ব্যাটার দলীয় এক রানে ব্যক্তিগত রানের খাতা না খুলেই কট বিহাইন্ড হন কেমার রোচের বলে।

শুরুর ধাক্কা অবশ্য ভালোভাবেই সামাল দেন ইমরুল কায়েস ও মমিনুল। দ্বিতীয় উইকেটে তাদের ১০৪ রানের জুটিতে বড় সংগ্রহের স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ।

দলীয় ১০৫ রানে ভাঙে এই জুটি। জোমেল ওয়ারিক্যানের বলে খোঁচা মেরে শর্ট লেগ ফিল্ডার সুনিল আমব্রিসের তালুবন্দি হন বেশ কয়েকবার জীবন পাওয়া ইমরুল। ফেরার আগে ৮৭ বলে পাঁচ চারে ৪৪ রান করেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই টেস্টে মাত্র ৫১ রান করা এই ওপেনার।

ঠান্ডা মাথায় ব্যাট চালাতে থাকেন অর্ধশতক হাঁকানো মমিনুল। মোহাম্মদ মিথুনকে সঙ্গী করে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন দলীয় স্কোর। তবে দীর্ঘ সময় মমিনুলকে সঙ্গ দিতে পারেননি চার নম্বরে ব্যাট করতে নামা মিথুন (২০)। দেবেন্দ্র বিশুর বলে শ্যান ডরিচের গ্লাভসবন্দি হওয়া এই ব্যাটারের বিদায়ে ভাঙে ৪৮ রানের জুটি। তবে বেগ পায়নি দল।

অবিচল মমিনুলের সঙ্গে জুটি গড়েন পাঁচ নম্বরে নামা অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এরই মধ্যে টেস্ট ক্যারিয়ারে অষ্টম সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি শতক করা তামিম ইকবালের রেকর্ডে ভাগ বসান মমিনুল। সেই সঙ্গে চলতি বছর টেস্টে সবচেয়ে বেশি চারটি সেঞ্চুরি করা ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির পাশেও নাম বসান বাঁহাতি এই ব্যাটার।

দলীয় ২২২ রানে শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে কট বিহাইন্ড হন ১৬৭ বলে ১০ চার ও এক ছক্কায় ১২০ রান করা মমিনুল। চতুর্থ উইকেট হারানোর পর খেই হারায় বাংলাদেশ। গ্যাব্রিয়েলের ঝড়ে মাত্র ৩৭ রানের ব্যবধানে ৫টি উইকেট হারায় তারা। এই পেসারের পরের তিন শিকার মুশফিকুর রহিম (৪), মাহমুদউল্লাহ (৩) ও সাকিব (৩৪)। বাঁহাতি স্পিনার জোমেল ওয়ারিক্যানের বলে বোল্ড হন ২২ রান করা মেহেদি হাসান মিরাজ।

উইকেট পতনের রাশ টেনে ধরেন নাঈম ও তাইজুল। ৫৬ রানের জুটি গড়ে অপরাজিত আছেন তারা। ৬০ বলে দুই চারে ২৪ রান নিয়ে ব্যাট করছেন নয় নম্বরে ব্যাট করতে নামা নাঈম আর ৫৭ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৩২ রানে অপরাজিত দশ নম্বরে নামা তাইজুল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মধ্যে ১৮ ওভারে ৬৯ রানে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নিয়েছেন গ্যাব্রিয়েল। ২ উইকেট নেন ওয়ারিক্যান। ১টি করে উইকেট রোচ ও বিশু।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৮৮ ওভারে ৩১৫/৮ (ইমরুল ৪৪, সৌম্য ০, মমিনুল ১২০, মিঠুন ২০, সাকিব ৩৪, মুশফিক ৪, মাহমুদউল্লাহ ৩, মিরাজ ২২, নাঈম ২৪*, তাইজুল ৩২*; রোচ ১৫-২-৫৫-১, গ্যাব্রিয়েল ১৮-২-৬৯-৪, চেইস ১১-০-৪২-০, ওয়ারিক্যান ২১-৬-৬২-২, বিশু ১৫-০-৬০-১, ব্র্যাথওয়েট ৮-১-১৯-০)

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত