শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জানুয়ারিতে রেকর্ড ছুঁয়েছে রেমিট্যান্স

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৪০ এএম

নতুন বছরের শুরুতেই রেমিট্যান্সের খরা কেটেছে। নির্বাচনের পর জানুয়ারি মাসে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে রেকর্ড হয়েছে। প্রথম মাস জানুয়ারিতে ১৫৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। ২০১৮ সালের প্রথম মাস জানুয়ারিতে ১৩৭ কোটি ৯৭ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। আর বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে এসেছিল ১২০ কোটি দুই লাখ ডলার।

এর আগে কাছাকাছি রেমিট্যান্স এসেছিল ২০১৪ সালের জুলাই মাসে। এক মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছিল ১৪৯ কোটি ২৪ লাখ ডলার। এরপর এ মাসেই এ সর্বোচ্চ পরিমাণ রেমিট্যান্সের তথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল রবিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রকাশিত তথ্যমতে, জানুয়ারিতে ১৫৯ কোটি ডলারের যে রেমিট্যান্স এসেছে, তা গত বছরের জানুয়ারির চেয়ে ১৫ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং আগের মাস ডিসেম্বরের চেয়ে ৩২ দশমিক ২ শতাংশ বেশি।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে অর্থাৎ জুলাই-জানুয়ারি সময়ে ৯০৮ কোটি ১৩ লাখ (প্রায় ৯.০৮ বিলিয়ন) ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের একই সময়ে পাঠিয়েছিলেন ৮৩১ কোটি ২০ লাখ (৮.৩১ বিলিয়ন) ডলার। এ হিসাবে সাত মাসে রেমিট্যান্স বেড়েছে ৯ দশমিক ২৫ শতাংশ।

বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম প্রধান সূচক রেমিট্যান্সে সুখবর দিয়ে শেষ হয়েছিল ২০১৮ সাল। গত বছরে এক হাজার ৫৫৩ কোটি ৭৮ লাখ (১৫.৫৪ বিলিয়ন) ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন তারা। এই অঙ্ক ২০১৭ সালের চেয়ে প্রায় ১৫ শতাংশ বেশি।

এদিকে রেমিট্যান্স বাড়ায় বাংলাদেশের বিদেশি মুদ্রার ভাণ্ডারও (রিজার্ভ) সন্তোষজনক অবস্থায় রয়েছে। গতকাল রিজার্ভের পরিমাণ ছিল ৩১ দশমিক ৩৯ বিলিয়ন ডলার। ২০১৬ সালের পর রিজার্ভ ৩১ বিলিয়ন ডলারের নিচে নামেনি। বর্তমানে এক কোটির বেশি বাংলাদেশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছেন। তাদের পাঠানো অর্থ বাংলাদেশে অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত