রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইয়েমেনে যুদ্ধ বন্ধে শান্তিচুক্তির আহ্বান পোপ ফ্রান্সিসের

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:১১ এএম

তিন দিনের ঐতিহাসিক সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থান করছেন রোমান ক্যাথলিক চার্চের প্রধান পোপ ফ্রান্সিস। তিনিই খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের প্রথম পোপ যিনি আরব আমিরাতে পা রাখলেন বলে জানিয়েছে ইউরোনিউজ। এই সফরকে পোপ সকল ধর্মের মধ্যে সম্পর্ক রচনায় নতুন এক অধ্যায়ের সূচনা বলে আখ্যা দেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে আসার আগে সেন্ট পিটার্সে পোপ ইয়েমেনের ক্ষুধার্ত মানুষের জন্য ত্রাণ সহায়তা সরবরাহে সাহায্য করতে ও শান্তিচুক্তি মেনে নিতে সব পক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়া তিনি আরও বলেন, ‘এই শিশুদের ও তাদের পিতামাতাদের কান্না খোদার কাছে পর্যন্ত চলে গেছে। আসুন আমরা জোরালোভাবে প্রার্থনা করি, কারণ তারা শিশু যারা ক্ষুধার্ত, তারা তৃষ্ণার্ত, তাদের ওষুধ নেই আর তারা মৃত্যুর বিপদের মধ্যে আছে।’

ইয়েমেন যুদ্ধ নিয়ে কঠোর নিন্দা জানানোর কয়েক ঘণ্টা পর গত রবিবার তিনি ইয়েমেনের যুদ্ধের অন্যতম অংশীদার দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) মাটিতে পা রাখেন। এসময় তাকে দেশটির সেনাবাহিনী প্যারেডের মাধ্যমে স্বাগত জানায়।

আরব আমিরাতের শাসক শেখ মোহাম্মদ গতকাল সোমবার এক টুইটবার্তায় বলেন, ‘আমরা পারস্পরিক সহযোগিতা, সংহত সংলাপ, সহনশীলতা, মানুষের সহাবস্থান এবং শান্তি অর্জনের পদক্ষেপ নিয়ে কথা বলেছি।’ আজ মঙ্গলবার কায়রোর আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমাম শেখ আহমেদ আল তায়েবের সঙ্গে পোপ ফ্রান্সিসের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

ইয়েমেন বিষয়ে পোপের বার্তাকে স্বাগত জানিয়েছে ইউএই। যে শান্তিচুক্তির উল্লেখ পোপ করেছেন তা ফলপ্রসূ হবে বলে তাদের বিশ্বাসÑ এ কথা জানিয়ে এক টুইটে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনওয়ার গারগাশ। তিনি বলেন, ‘আসুন এই চুক্তির বাস্তবায়ন নিশ্চিত করি এবং ২০১৯-কে ইয়েমেনের শান্তিবর্ষতে পরিণত করি।’

প্রায় চার বছর ধরে চলা ইয়েমেনের যুদ্ধে লড়াইরত পক্ষগুলো প্রথমবারের মতো বড় ধরনের একটি শান্তি আলোচনায় ডিসেম্বরে অস্ত্রবিরতি করতে সম্মত হয়। ইয়েমেনের লড়াইয়ে হাজার হাজার লোক নিহত হয়েছে এবং প্রায় ১০ লাখ লোক দুর্ভিক্ষের মুখে আছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। সূত্র: এএফপি

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত