মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বসের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক তৈরির উপায়

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:১১ পিএম

বসের সঙ্গে ভালো বোঝাপড়া সব চাকরিজীবীরই কাক্সিক্ষত। কিন্তু সব সময় হয় না। তাই বলে চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে ভলো বসের সন্ধানে নেমে পড়া কাজের কথা নয়। ভালো সম্পর্ক রক্ষা করার উপায়

১. বসকে ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। তার পছন্দ-অপছন্দ বোঝার চেষ্টা করুন। কঠিন বস কি সব সময়ই কঠিন, নাকি মাঝেমাঝে। পরিবেশ সাপেক্ষে তিনিও তরল হন। যদি হন, তাহলে কোন সে পরিবেশ, কী সেই পরিস্থিতি ইত্যাদি প্রশ্নগুলোর উত্তর খুঁজুন পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে।

২. নিজে এমন কোনো কাজ করবেন না, যাতে বসের রোষানলে পড়েন। বসের সঙ্গে আপনার দূরত্ব আরও বেড়ে যাবে।

৩. বসকে বসের মতো থাকতে দিন। কখনোই ভাববেন না, আপনি বসের এই চরিত্র পাল্টে তাকে সহজ-হাসিখুশি বানিয়ে ফেলবেন। বরং নিজেকে বসের পছন্দের মতো ধরে রাখার চেষ্টা করুন।

৪. তোষামোদি করে বসের মন জয় করতে চাইবেন না। বসের প্রকারভেদ আছে। বুঝতে হবে, যে বস কাজ পাগল তাকে আপনি কাজ দিয়েই জয় করুন। তাই কোন পথ বেছে নেবেন সেটা পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেবেন।

৫. নির্লজ্জ তোষামোদি কেউ পছন্দ না করলেও বুদ্ধিদীপ্ত প্রশংসা কিন্তু প্রায় সবাই-ই পছন্দ করে। যথাযথ প্রশংসাও বসের সঙ্গে আপনার সম্পর্ক ভালো করতে সাহায্য করবে।

৬. বসের জন্মদিনে কেক কাটা, লাঞ্চ বক্সের খাবার অফার করা, গিফট দেওয়া এগুলো পুরনো প্রথা । বরং বসের পেন্ডিং কাজে নিজে থেকে সাহায্য করতে এগিয়ে যাওয়া, কোনো জটিল কাজে ভালো সমাধানের আইডিয়া দেওয়া । যদি গিফট দিতেই চান, তাহলে বসের প্রিয় বিষয়টি জেনে নিন এবং সেই সংক্রান্ত উপহার দিন।

৭. সবচেয়ে ভালো উপায় নিজেকে চৌকস করে তোলা। নিজেকে যোগ্যতর করে তুলুন। যাতে সকলে আপনার কাজের প্রশংসা করে। নিজের অবস্থান অন্যদের কাছে তুলে ধরুন।

৮.  সময় সুযোগ বুঝে আপনার দক্ষতার অন্য দিকগুলো প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে বসের সামনে তুলে ধরুন। কোনোভাবেই ধৈর্য হারাবেন না। আপনার কারণে আপনার বসের মুখ উজ্জ্বল হয় তার জন্য কাজ করে যাবেন। হয়তো সময় লাগতে পারে, কিন্তু একদিন আপনার বস অবশ্যই আপনাকে বুঝবেন ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত