রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইউরোপে দিন ফুরোচ্ছে ফেইসবুকের

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:৫৮ পিএম

অ্যাডভারটাইজিং বিজনেসের দারুণ একটি বাজার সৃষ্টি করেছে ফেইসবুক। কিন্তু ইউরোপে তীব্র চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি।সম্প্রতি জার্মান সরকারের একটি দপ্তর থেকে বলা হয়েছে, তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে ইন্সটাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ মাধ্যমের সহযোগিতা নিয়ে ফেইসবুক তার বাজারকে কলঙ্কিত করেছে। এ ধরনের কর্মকা- যেন আর না চালানো হয়, সে বিষয়ে একটি রুল জারি করে ফেইসবুককে সতর্ক করেছে জার্মানির একটি আদালত। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সামাজিক মাধ্যমটির বিরুদ্ধে জারি করা রুলটি সমগ্র ইউরোপের বাজারে এর ইতি টেনে দিতে পারে।

কলাম্বিয়া ল স্কুলের প্রফেসর অনু ব্রাডফোর্ড বলেন, ‘বিভিন্নভাবেই ফেইসবুক তার ক্ষমতার অপব্যবহার করে চলেছে; ইউরোপে যার মূল্য দেওয়া লাগতে পারে।’

ফেইসবুক ব্যবহারের জন্য বাড়তি কোনো টাকা দিতে হয় না ব্যবহারকারীদের। তবে অজান্তেই ব্যবহারকারীদের তথ্য বিনিয়োগ করতে হয়। আর এই তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই সুনির্দিষ্ট অ্যাডভারটাইজিং প্রক্রিয়া চালু রাখে ফেইসবুক। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ইন্সটাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো কিনে নিয়েছে ফেইসবুক। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের আরও বিস্তৃত হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

জার্মানির নিয়ন্ত্রক সংস্থা দাবি করে, দেশটির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ৯৫ শতাংশই ফেইসবুকের দখলে। সংস্থাটি ফেইসবুককে তার ব্যবহারকারীদের তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে আরও স্পষ্ট ধারণা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। তবে এক ব্লগ পোস্টে এর সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছে ফেইসবুক। জার্মানিতে জারি হওয়া রুলটির বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।এদিকে জার্মানির আদালতের করা রুলটি আমলে নিয়েছে ইউরোপিয়ান কমিশনের এন্টিট্রাস্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জার্মানির আদলে ইউরোপিয়ান কমিশনও ফেইসবুক ইস্যুতে একই ধরনের তদন্ত চালাবে। তাদের তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে ইউরোপে বিদায় ঘণ্টা বেজে যেতে পারে ফেইসবুকের।গত বছর গুগলকে পাঁচ বিলিয়ন ডলার জরিমানা করেছিল এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতা পাড়ি দিয়েছে ফেইসবুক। এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তথ্য পাচারের মতো গুরুতর অপরাধের তদন্ত এখনো চলমান।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত