শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

কন্ডিশন ভাবাচ্ছে না বাংলাদেশকে

আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:২৮ এএম

একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে ২ উইকেটে হার। তারপরও এই ম্যাচ খেলার সুযোগটাকেই বড় করে দেখছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। রবিবার লিঙ্কনে নিউজিল্যান্ড একাদশের কাছে হেরে গেলেও তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে সে দেশের কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার সুযোগটাই বড় পাওয়া তাদের কাছে। গতকাল দুপুরে লিঙ্কন থেকে প্রথম ম্যাচের ভেন্যু নেপিয়ারে পৌঁছেছে প্রস্তুতি ম্যাচের দলে থাকা ১২ ক্রিকেটার। আর বিকেলে তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দেশ থেকে যাওয়া চার ক্রিকেটার মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা, তামিম ইকবাল, রুবেল হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। আগের দিন বাংলাদেশ দলকে প্রস্তুতি ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ হার থেকে ইতিবাচক প্রাপ্তিটাকেই বড় করে দেখেছিলেন। নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে দ্রুত খাপ খাইয়ে নেওয়াই ছিল বড় চ্যালেঞ্জ। মিরাজের দাবি, এই ম্যাচটি ছিল তাদের কন্ডিশনের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার বড় সুযোগ।

নেপিয়ারে আগামীকাল সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে স্থানীয় সময় দুপুর ১টায়। বাংলাদেশের দর্শকদের ম্যাচটি উপভোগ করতে অবশ্য টিভি স্ক্রিনের সামনে বসতে হবে সকাল ৭টায়। স্থানীয় আবহাওয়া অফিসের আভাস মতে, সেখানে কন্ডিশন থাকবে রৌদ্রোজ্জ্বল। ২২ থেকে ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস হবে তাপমাত্রা। আর বৃষ্টির সম্ভাবনাও একেবারে কম। এমন কন্ডিশন নিয়ে তাই কোনো অভিযোগ নেই সফরকারীদের। অন্তত তেমনটাই মনে হয়েছে ম্যাচ শেষে মিরাজের কথা থেকে, ‘এই ম্যাচটা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কারণ গত এক মাস আমরা বিপিএলে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছি। আজকে আমরা ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলেছি। আমাদের সামনে ওডিআই সিরিজ আছে। নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে ব্যাটসম্যান ও বোলাররা দ্রুত খাপ খাইয়ে নিতে এটা ছিল ভালো একটা সুযোগ। সেটা ভালোভাবেই আমরা কাজে লাগাতে পেরেছি।’

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশ দলের অতীত সফরগুলো খুব সুখকর ছিল না। সর্বশেষ দুটি সিরিজে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ হতে হয়েছিল স্বাগতিকদের কাছে। যদিও সর্বশেষ দুটি হোম সিরিজে কিউইরা পাত্তাই পায়নি বাংলাদেশের কাছে। যাহোক, শেষ দুটি দেখায়ও টাইগাররা জিতেছে। দুবারই ৫ উইকেটের ব্যবধানে। ২০১৭ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েই সেমিফাইনালের পথ সুগম হয়েছিল মাশরাফী বাহিনীর। প্রস্তুতি ম্যাচে না খেললেও ওয়ানডে সিরিজে শুরু থেকেই দলকে নেতৃত্ব দেবেন মাশরাফী। তার উপস্থিতি এর মধ্যেই বদলে দিচ্ছে দলের মনোভাব। কাল নেপিয়ারে টিম হোটেলে চেকইনের সময় সাব্বির রহমানের কথাতেই ঝড়েছে আত্মবিশ্বাস। প্রস্তুতি ম্যাচে সাতে নেমে ৪১ বলে ৪০ রানের ইনিংস খেলে দিয়ে রেখেছেন রানে ফেরার ইঙ্গিত। নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরার পর প্রথম ম্যাচের আগে খানিকটা নার্ভাস ছিলেন, স্বীকারও করে নিলেন তা, ‘অনেক দিন পর খেললাম, একটু ভয় ছিল। তবে দলের সঙ্গে থেকে এখন আর সেটা নেই।’ নিউজিল্যান্ডে কন্ডিশন নিয়ে তিনিও ভাবছেন না খুব একটা, ‘এখানে আসার আগে ভেবেছিলাম অনেক ঠা-া থাকবে। আসলে তা নয়। কন্ডিশনটা খুবই চমৎকার। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুবাদে এই কন্ডিশনের সঙ্গে আমরা এর মধ্যেই খাপ খাইয়ে নিয়েছি।’ দলের অবস্থাটা জানতে চাইলে সাব্বির বলেন, ‘খুব ভালো আছে। আমরা প্রস্তুতি ম্যাচে ২৪৭ রান করেছি। যাদের রানের দরকার ছিল তারা প্রায় সবাই রান পেয়েছে। ওয়ানডে সিরিজের আগে আমরা খুব আত্মবিশ্বাসী। প্রথম ম্যাচটা আমরা জয়ের জন্যই খেলব। কারণ প্রথম ম্যাচ জেতা থাকলে বাড়তি সুবিধাটা পাওয়া যায়।’ বিপিএলের শেষ ম্যাচে আঙুলের ইনজুরি শেষ করে দিয়েছে সাকিব আল হাসানের খেলার সম্ভাবনা। দলের মূল পারফরমারকে হারানোটা বড় আঘাত মনে করেন সাব্বির, ‘এটা আসলে বড় দুঃসংবাদ আমাদের জন্য। তবে তাকে ছাড়াও আমরা অতীতে খেলেছি এবং জিতেছি। আশা করছি দলের অন্যরা সবাই তার অনুপস্থিতি টের পেতে দেবে না।’

দলের বেশিরভাগ সদস্য খেলার সুযোগ পেলেও সেই সুযোগটা পাননি দলের অধিনায়ক মাশরাফী ও সহঅধিনায়ক তামিম ইকবালসহ চার ক্রিকেটার। দীর্ঘ বিমানভ্রমণ শেষে গতকাল বিকেলে নেপিয়ারে পৌঁছেই মাঠে নেমে পড়া সম্ভব নয়। তাই এই চারজন ওয়ানডে সিরিজের আগে প্রস্তুতি এবং কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাবেন আজ একটি সেশনে। এটা নিয়ে বাড়তি কিছু দুশ্চিন্তা থাকলেও বিপিএলে দুর্দান্ত পারফর্ম করা মাশরাফী ও তামিম নিজেদের অভিজ্ঞতা দিয়ে দ্রুত মানিয়ে নেবেন এটাই সবার প্রত্যাশা।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত