শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সংসদে না এসে তারা ভুল করছে : প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:৪০ এএম

বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তারা সংসদে না এসে ‘রাজনৈতিক ভুল’ করছে।

গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, নির্বাচিত হলে সংসদে আসা উচিত। শেখ হাসিনা প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের এই ‘ভুলের’ বিষয়টি তুলে ধরেন। বিএনপিকে নিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, যারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে অল্প সিট পেয়েছে, সেই অভিমান করে তারা পার্লামেন্টে আসছে না। আমার মনে হয় রাজনৈতিক একটা ভুল সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছে। কারণ ভোটের মালিক জনগণ, তারা যাকে খুশি তাদের ভোট দেবেন এবং সেভাবেই তারা ভোট দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যদি তারা সংসদে আসে আর তাদের যদি কোনো কথা থাকে, তা বলার একটা সুযোগ পাবে। এই সুযোগ কেবল সংসদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে না। এখন সংসদের কার্যক্রম মিডিয়াতে সরাসরি যায়, সংসদ টেলিভিশনও আছে। এটার মাধ্যমে দেশবাসী তাদের কথা শুনতে পাবেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সবার সম্মিলিত চেষ্টায় দেশটাকে গড়ে তুলতে চেয়েছি। এ জন্য নির্বাচনের আগে সব দলকে ডেকেছি। তাদের সঙ্গে সুন্দর পরিবেশে বৈঠক করেছি এবং নির্বাচন করার আমন্ত্রণ জানিয়েছি।

১০ বছরের উন্নয়নের সুফল বাংলাদেশের মানুষ পেয়েছে বলেই বহু পূর্ব থেকে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন। জনগণ সেই ভোট দিয়েছেন।

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমামের প্রশ্নের জবাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, এই সুযোগটা তারা কেন হারাচ্ছেন, আমি জানি না। তবে আহ্বান এটাই থাকবেÑ যারা নির্বাচিত হয়েছেন, তারা সবাই পার্লামেন্টে আসবেন, বসবেন এবং যার যার কথা তারা বলবেন। সেই আহ্বান জানাচ্ছি।

অবসরে গ্রামে যাওয়া বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গ্রামটা হচ্ছে আমাদের প্রাণ। গ্রামের মানুষকে আমরা নাগরিক সুবিধা দিতে যাচ্ছি। একটু ভালো হলেই গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে আসা, এটা আমার কোনো দিনই পছন্দের নয়। গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছি। গ্রামে বড় হয়েছি। গ্রামের কাদামাটি মেখেই বড় হয়েছি। গাছে উঠে খালে ঝাঁপ দিয়েছি। খেলাধুলা করে গ্রামে বড় হয়েছি।

তিনি বলেন, একটা পর্যায়ে ঢাকা চলে এসেছি, তবে গ্রামের টান কখনো মুছে যায়নি। এখনো মনটা পড়ে থাকে আমার প্রিয় ওই গ্রামে। কাজেই সবসময় একটা আকাক্সক্ষা যখনই অবসর নেব, আমি গ্রামের বাড়িতে গিয়ে থাকব। 

আরেক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা জানান, চতুর্থবার সরকার গঠন করায় ৯৭টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রধান তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী একটি চক্র মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিকে ব্যবহারের মাধ্যমে রাজনীতি করে দেশের সুনাম ক্ষুণœ করতে চেয়েছে। তবে আমাদের ঐকান্তিক চেষ্টায় বার বার তা ব্যর্থ হয়েছে। এই কুচক্রী মহল দেশে যাতে কোনোভাবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের ক্ষেত্র তৈরি করতে না পারে, সে ব্যাপারে আমরা সজাগ রয়েছি।

গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদের সুপারিশমালা পরীক্ষা করে দ্রুত গেজেট প্রকাশ করা হবে বলে প্রধানমন্ত্রী জানান। আগামী ২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তক পরিবর্তন হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, প্রাথমিক স্তরের শিক্ষা কার্যক্রমকে নতুনভাবে চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম নতুনভাবে চালুর লক্ষ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে শিক্ষাক্রম পরিমার্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। ২০১৯-২০ সালের মধ্যে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষাক্রম পরিমার্জন হবে। পরবর্তী বছর থেকে নতুন শিক্ষাক্রমে ছাপানো বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত