রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পিএসজিকে কাঁদিয়ে কোয়ার্টারে ম্যানইউ

আপডেট : ০৮ মার্চ ২০১৯, ০১:২৩ এএম

মার্কাস রাশফোর্ড ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে কখনো পেনাল্টি শুট নেননি। এবার প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের বিপক্ষে শেষ মুহূর্তে তার নেওয়া পেনাল্টির কথা চিন্তা করুন। রাশফোর্ড মাত্র ২১ বছরের তরুণ। তার বিপরীতে গোলপোস্টের নিচে ইতালি গ্রেট জিয়ানলুইজি বাফন। গ্লাভস হাতে তার কীর্তি অনেক। সঙ্গে ৫০ হাজার ধারণক্ষমতার পার্ক দে প্রিন্সেস স্টেডিয়াম, যা পুরোটাই পিএসজিকে সমর্থন করছে। এমন অবস্থায় শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে মুখ লুকানোর জায়গা থাকবে না রাশফোর্ডের। কিন্তু ইংলিশ তরুণ ভয়কে জয় করলেন। চাপের পাহাড় ভেঙে ম্যানইউর প্রত্যাশার বেলুন ওড়ালেন আকাশে।

তিন সপ্তাহ আগে ম্যানইউর মাঠে উন্মত্ত উল্লাসে মেতেছিল পিএসজি। তিন সপ্তাহ পর তাদের মাঠে উল্টো চিত্র। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ২-০-তে হেরে যাওয়া প্রিমিয়ার লিগ জায়ান্টরা দ্বিতীয় লেগ জিতে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। চরম নাটকীয়তায় বুধবার পিএসজির মাঠে ৩-১ গোলে জিতেছে রেড ডেভিলরা। নির্ধারিত সময় শেষে ইনজুরি সময়ের অন্তিম মুহূর্তে পেনাল্টি পায় ম্যানইউ। তাতে লক্ষ্যভেদ করে দলকে উল্লাসে ভাসান রাশফোর্ড। দুই লেগ মিলিয়ে ৩-৩ ব্যবধান দাঁড়ায় দুই দলের। কিন্তু পিএসজির মাঠে ম্যানইউ এক গোল বেশি করায় তারাই কোয়ার্টারের টিকিট পায়।

২-০-তে প্রথম লেগ জেতা পিএসজি ভাবতেই পারেনি এমনটা হবে। কল্পনার শহরে অকল্পনীয় সত্য মেনে নিতে হলো তাদের। স্বাগতিকদের যত ক্ষোভ শেষদিকের পেনাল্টি নিয়ে। ম্যাচ শেষের আগমুহূর্তে ম্যানইউর দিয়াগো দালতের শট ফেরানোর চেষ্টা করেন পিএসজি ডিফেন্ডার প্রেসনেল কিমপেম্বে। ডি-বক্সের বাইরে থেকে লাফ দেন তিনি। শূন্যে থাকা অবস্থাতেই বক্সের ভেতরে চলে যান। এমন সময় বল তার বাহুতে লাগে। ম্যানইউ ফুটবলারদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ভিডিও অ্যাসিস্টেন্ট রেফারির সাহায্য নেন রেফারি। ভিডিও দেখার পর পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। গর্জে ওঠে ক্ষুব্ধ পিএসজি। কিন্তু সিদ্ধান্ত যা হওয়ার তাই হয়েছে। আর ম্যানইউর হয়ে প্রথম পেনাল্টিতে সাফল্য দেখিয়ে রাতটি নিজের করে নেন রাশফোর্ড।

এর আগে রোমেলু লুকাকুর জোড়া গোলে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখে ম্যানইউ। মাত্র ২ মিনিটে অ্যাওয়ে গোল করেন বেলজিয়ান এ স্ট্রাইকার। কিন্তু ১২ মিনিটে বারনেট পিএসজিকে সমতায় ফেরালে দুই লেগের ব্যবধান দাঁড়ায় ৩-১। ৩০ মিনিটে বুফনের ভুলে সুযোগ বুঝে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন লুকাকু। দুই লেগের হিসাবে ৩-২-এ পিছিয়ে থাকা অতিথিরা একটি গোল করলেই পরের রাউন্ড নিশ্চিত। শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতিতে ভাগ্য সহায় হয় ম্যানইউর। নকআউটে ঘরের মাঠে দুই গোলে হেরে দ্বিতীয় লেগ জেতা ও পরের রাউন্ডে পা রাখা প্রথম দল হয়েছে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে সফল ক্লাবটি। আর ফরাসি জায়ান্টরা এই টুর্নামেন্টে সর্বশেষ ১২টি নকআউট ম্যাচে সপ্তম হার হজম করে।

রাতের অন্য ম্যাচেও ভিএআর সিদ্ধান্তই ফল গড়ে দিয়েছে। ইতালিয়ান ক্লাব এএস রোমাকে দ্বিতীয় লেগে ৩-১ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টারে উঠেছে এফসি পোর্তো। প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে ২-১-এ জিতেছিল রোমা। পোর্তো নিজেদের মাঠে নির্ধারিত সময়ে ২-১-এ এগিয়ে থাকায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানে ১১৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে কোয়ার্টারে নিয়ে যান টেয়াস। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ ব্যবধানে জেতে পর্তুগালের দলটি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত