রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘নকল লাইন’ দিয়ে ভোটারদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ

আপডেট : ১১ মার্চ ২০১৯, ১১:২১ এএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ নিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ করেছেন ছাত্রলীগ ছাড়া অন্যান্য প্যানেলের প্রার্থীরা। তাদের অভিযোগ, ভোটকেন্দ্রের সামনে ‘নকল লাইন’ দাঁড় করিয়ে ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে বাম জোটের প্রার্থী লিটন নন্দী সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, হাজী মুহাম্মদ মহসিন হলে কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে তার ওপর হামলার চেষ্টা করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

তিনি বলেন, সূর্যসেন হলে লাইনের জটলা সৃষ্টি করে ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে তিনি হল প্রভোস্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বলেছেন।

ভোটের সার্বিক পরিস্থিতিতে অসন্তোষ জানিয়ে এই ভিপি প্রার্থী বলেন, নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত থাকবেন কিনা সে বিষয়ে তারা বৈঠক করে এখনই সিদ্ধান্ত নেবেন।

এর আগে বাংলাদেশ সাধারণ শিক্ষার্থী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ থেকে ভিপি প্রার্থী নুরুল হক নুরু বলেন, লাইনের জটলা পাকিয়ে অমর একুশে হলে অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের প্রবেশে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে ভোটের শুরুতে খালি বাক্স দেখানো নিয়ে শিক্ষার্থী ও প্রশাসনের মধ্যে বিরোধের জেরে রোকেয়া হলে এক ঘণ্টা দেরিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

এছাড়া সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটের দিকে ছাত্রীরা বস্তাভর্তি ব্যালট উদ্ধার করে হলের গেটে চলে আসেন। তারা গণমাধ্যমের সামনে বস্তা খুলে সিলমারা ব্যালট দেখান এবং বিক্ষোভ শুরু করেন। সেখানে ভোটগ্রহণ সাময়িক বন্ধ থাকে।

তবে ভোটগ্রহণে সন্তোষ প্রকাশ করে ছাত্রলীগ থেকে ভিপি প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক মো. দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই ভোটগ্রহণ সম্ভব হবে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে প্রতীক্ষিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচন। সোমবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। সকাল থেকেই ভোটারদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত