শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জাপা মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু মারা গেছেন

আপডেট : ০৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৮ এএম

সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু মারা গেছেন। করোনাভাইরাস পরবর্তী জটিলতা নিয়ে রাজধানীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের প্রেস সচিব খন্দকার দেলোয়ার জালালী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। জিয়াউদ্দিন বাবলুর বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর।

সাবেক মন্ত্রী, সাংসদ এবং ডাকসুর সাবেক জিএস জিয়াউদ্দিন বাবলুর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রী- সাংসদসহ বিরোধী দলের নেতারা। এ ছাড়া বিএনপিসহ  বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারাও শোক প্রকাশ করেছেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এক শোকবার্তায় জিয়াউদ্দিন বাবলুর আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও জাতীয় পার্টি মহাসচিব বাবলুর মৃত্যুতে শোক জানিয়ে বার্তা দিয়েছেন। তিনিও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

গত মাসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন জিয়াউদ্দিন বাবলু। অবস্থার অবনতি ঘটার পর তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছিল। জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার এশার নামাজের পর গুলশানের আজাদ মসজিদে জানাজা শেষে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী গোরস্তানে দাফন করা হয়।

জিয়াউদ্দিন বাবলুর জন্ম ১৯৫৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর, চট্টগ্রামে। ইংরেজিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেওয়ার পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবিও সম্পন্ন করেন। ১৯৮৮ সালে প্রথম সংসদ সদস্য হন বাবলু। ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে নির্বাচনকালীন সরকারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা করা হয়েছিল তাকে।

২০১৪ সালে (চট্টগ্রাম-৯) আসন থেকে দশম জাতীয় সংসদের সদস্য হন বাবলু। একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হতে চাইলেও জোট রাজনীতির কারণে এরশাদের অনুরোধে তিনি ভোটের মাঠ থেকে সরে দাঁড়ান। ২০১৪ সালে এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে সরিয়ে এরশাদ জাতীয় পার্টির মহাসচিব করেন বাবলুকে। ২০১৬ সালের ১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত সেই দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এরপর ২০২০ সালের জুলাই মাসে মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাকে সরিয়ে বাবলুকে আবার সেই পদে ফিরিয়ে আনেন এরশাদের মৃত্যুর পর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে আসা জি এম কাদের।

দলের এই নেতার মৃত্যুতে এক শোকবার্তায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেন, ‘জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু ছিলেন গণমানুষের নেতা। তিনি ছাত্রজীবন থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত গণমানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন। ছাত্রজীবনেই তার অনুপম নেতৃত্ব প্রকাশ হয়েছিল। বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছিলেন ডাকসুর জিএস। মানুষের অধিকার রক্ষার আন্দোলনে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু সবসময় ছিলেন আপসহীন। তিনি অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন আজীবন।’ জাতীয় পার্টি গড়ে তুলতে বাবলুর ভূমিকাও স্মরণ করেন জি এম কাদের। জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সাবেক মন্ত্রী জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ।

শোক বার্তায় বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, জিয়াউদ্দিন বাবলু দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় পার্টির বিভিন্ন পদে বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অবদান রেখেছেন। বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে রাজনৈতিক অঙ্গনে অপূরণীয় ক্ষতি হলো, যা সহসা পূরণ হওয়ার নয়।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।  

জাতীয় পার্টির তিন দিনের শোক : দলের মহাসচিবের মৃত্যুতে তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছে জাতীয় পার্টি। গতকাল শনিবার থেকে আগামীকাল সোমবার পর্যন্ত জাতীয় পার্টির প্রতিটি দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে, উড়বে কালো পতাকা। আজ রবিবার দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হবে শোকসভা। জাতীয় পার্টির প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী জানান, আজ রবিবার বিকেল ৩টায় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কাকরাইল চত্বরে জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর মৃত্যুতে শোকসভা অনুষ্ঠিত হবে। শোকসভায় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় নেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদেরসহ পার্টির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন। পার্টি ঘোষিত তিন দিনের শোক দিবসের মধ্যে বিভাগীয়, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কার্যালয়ে শোকসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হবে।

ঢাবি উপাচার্যের শোক : জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুর মৃত্যুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বাণীতে উপাচার্য বলেন, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু ছিলেন মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন একজন বিনম্র চরিত্রের সদাহাস্যোজ্জ্বল রাজনীতিবিদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, ছাত্রনেতা ও ডাকসুর জিএস হিসেবে তিনি বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও পরিবারের শোকসন্তপ্ত সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত