বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নড়াইলের ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম

আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১২ এএম

নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পুরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য এনামুল হক এনাকে (৫০) কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ। গতকাল রবিবার দুপুর ২টার দিকে এনামুল হক এনা মেম্বারের বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

গত বছরের ইউপি নির্বাচন নিয়ে বিরোধ ও পূর্বশত্রুতার জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এনা রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আবদুল মজিদের ছেলে। মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে হামলার ঘটনার পর এনা মেম্বারের লোকজন পাল্টা প্রতিশোধ নিতে প্রতিপক্ষ খায়রুজ্জামানসহ ৩টি বাড়িতে ভাঙচুর চালিয়েছে।

আহত এনামুল হকের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী লতা বেগম বলেন, ‘গত বছর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে এনামুল হক এনা মেম্বার ও খায়রুজ্জামানের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। রবিবার জোহরের নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথেই খায়রুজ্জামান গ্রুপের লোকেরা অতর্কিতভাবে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এসময় এনা মেম্বারকে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। এনা মেম্বারের চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে এলে প্রতিপক্ষ পালিয়ে যায়। ধারালো অস্ত্রের কোপে এনা মেম্বারের বাম হাতের তিনটি আঙুল কেটে পড়ে যায় এবং হাত-পায়ে একাধিক কোপে মারাত্মকভাবে জখম হয়। তাকে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।’

প্রতিপক্ষ খায়রুজ্জামানের স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিন বলেন, ‘এনা মেম্বার গ্রুপের লোকেরা জোর করে আমাদের বাড়িঘরে প্রবেশ করে মূল্যবান আসবাবপত্র ভাঙচুর করে এবং স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে গেছে। এ ছাড়া আমাদের পক্ষের সুবেদার (অব.) তমজীদ ও ইকরামুল শেখের বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এনা মেম্বরের লোকজনের হামলায় রঘুনাথপুর গ্রামের সাকায়েত হোসেনের ছেলে হিমুকে (৪০) কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেছে।’

কালিয়া থানার ওসি শেখ তাসমিম আলম বলেন, ‘ঘটনার পর থেকেই ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত