বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মানুষের জন্য লিখতে চাই

আপডেট : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৪:১৪ এএম

পাঠকদের কাছে পরিচিত এক মুখ কথাসাহিত্যিক স্বকৃত নোমান। লিখছেন দীর্ঘ সময় ধরে। স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন বাংলা একাডেমি প্রবর্তিত রাবেয়া খাতুন ও আইএফআইসি পুরস্কার। তবে এ সাহিত্যিক সবকিছুকে ছাপিয়ে মানুষের জন্য লিখতে চান।

বইমেলায় নতুন কোনো বই আসছে কি না জানতে চাইলে তিনি গতকাল সোমবার দেশ রূপান্তরকে বলেন, এবারের মেলায় তিনটি বই আসছে। এর মধ্যে পাঠক সমাবেশ থেকে ‘কয়েকজন দেহ’ যুগবর্তী সংস্করণ হিসেবে ‘রাজ নোটি’ ও পাঞ্জেরী পাবলিকেশন থেকে ‘উজান বাসি’। এর মধ্যে ‘কয়েকজন দেহ’ উপন্যাসটি এবারে নতুন। ‘কয়েকজন দেহ’ উপন্যাসটি নিয়ে জানতে চাইলে স্বকৃত নোমান বলেন, দুই বছর ধরে উপন্যাসটি লিখেছি। এতে যৌনতা, প্রেম, কাম নিয়ে ১৫টি গল্পের ওপরে বইটি লেখা। যৌনতা মানুষের মৌলিক অধিকার। সমাজে যৌন হয়রানি, ইভটিজিংয়ের মতো জঘন্য পরিস্থিতি আছে। আমি এর কোনো সমাধানের দিকে না গিয়ে সমাজে প্রকৃত অবস্থাটা গল্পের মধ্যমে দেখানোর চেষ্টা করেছি।

‘কয়েকজন দেহ’ উপন্যাস কোন বয়সী পাঠকদের আকৃষ্ট করতে চেয়েছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই অপ্রাপ্ত বয়সীদের জন্য এ উপন্যাস নয়। আমার গল্পের ভাষা অগ্রসর পাঠকরা ভালো বুঝবেন। কেননা অগ্রসর বয়সী পাঠকদের মধ্যে স্বভাবতই প্রেম, আবেগ অনুভূতি কাজ করে।

এবারের মেলার প্রত্যাশা নিয়ে এ কথাসাহিত্যিক বলেন, গেল কয়েক বছর করোনার জন্য বইমেলা তেমন একটা জমেনি। তবে অনেক বই বিক্রি কম ও পাঠক নেই বলে অপপ্রচার করছেন। খেয়াল করে দেখেছি এবারের মেলার দ্বিতীয় দিন থেকে আশানুরূপ পাঠক আসছেন। বই বিক্রি হচ্ছে প্রচুর। তবে আমাদের নেতিবাচক মনোভাব থেকে সরে এসে ইতিবাচক প্রচারণা পারে মেলার পরিস্থিতি আরও ভালো করতে পারে।

প্রবীণ লেখকদের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার কারণে তরুণ প্রজন্ম বই-বিমুখ হচ্ছে দাবি করে স্বকৃত নোমান আরও বলেন, আমাদের প্রবীণ লেখকরা বারবার বলছেন তরুণ প্রজন্ম বই পড়ছে না। আমি মনে করি তাদের এমন মন্তব্যের জন্য তরুণরা আশাহত হচ্ছেন।

উজান বাসি উপন্যাস নিয়ে জানতে চাইলে কথাসাহিত্যিক নোমান বলেন, ১৯৭১ থেকে ২০০৫ পর্যন্ত এই সমকালকে ধরতে চেয়েছি। সে সময় একজন উলঙ্গ মানুষ ভারত থেকে নেমে আসেন। তাকে কেন্দ্র করে একটা জনপদের সংস্কৃতি পরিবর্তন হয়ে যায়। অর্থাৎ এ উপন্যাসটির মাধ্যমে জ্ঞানের দ্বন্দ্বকে দেখাতে চেয়েছি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত